শুধু তা–ই নয়, একই দিনে মিকি এক মিনিটে ছয়টি হটডগ খেয়ে আরেকটি বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন। এর আগে এক মিনিটে তিনটি হটডগ খাওয়ার রেকর্ড ছিল। সেই তুলনায় এক মিনিটে মিকি তিনটি হটডগ বেশি খেয়েছেন।

এ তো গেল মিকির অর্জন, তাঁর স্বামী নিকোলাসও কম নন। তিনি একটানা ১২টি হটডগ খেয়েছেন। তা–ও মাত্র তিন মিনিটে। এর মধ্য দিয়ে তিন মিনিটে সবচেয়ে বেশি হটডগ খাওয়ার বিশ্ব রেকর্ড গেছে নিকোলাসের দখলে। এর আগে রেকর্ডে তিন মিনিটে নয়টি হটডগ খাওয়ার রেকর্ড ছিল।

নিকোলাস–মিকি দম্পতি অনেক আগে থেকেই দ্রুত খাওয়ার জন্য পরিচিত। তবে চার বছর আগে দ্রুত খাওয়ার একটি প্রতিযোগিতায় তাঁদের প্রথম দেখা হয়। সেখান থেকে আলাপ, পরে তা বিয়েতে গড়ায়। তাঁরা যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ‘ক্ষুধার্ত দম্পতি’ বা ‘হাংরি কাপল’ নামে পরিচিত। তাঁদের সংসারে একটি সন্তান রয়েছে। তাঁরা দ্রুত খাওয়ার বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় একে অপরের প্রতিযোগীও।

দ্রুত খাওয়ার প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে ভীষণ ভালো লাগে বলে মন্তব্য করে মিকি বলেন, ‘এমন একটি প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সময় নিকোলাসের সঙ্গে আমার প্রথম দেখা। সেখান থেকে আলাপ, বিয়ে, সংসার।’ তিনি জানান, এখন তিনি আর নিকোলাস দ্রুত খেতে পারা ব্যক্তিদের বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে যথাক্রমে তৃতীয় ও চতুর্থ অবস্থানে রয়েছেন।