এ ছাড়া গত কয়েক দিনে ভারত সরকারের ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায় থাকা কয়েকটি দেশ থেকে দিল্লিতে ফেরা ১৭ জন যাত্রীকে দিল্লির একটি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। করোনা পজিটিভ হওয়ার পর তাঁদের ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁদের নমুনার জিনগত রূপ জানার জন্য গবেষণাগারে পাঠানো হয়েছে।

অমিক্রন ধরনে আক্রান্ত হিসেবে সন্দেহ করা হচ্ছে, গতকাল শনিবার রাত পর্যন্ত এমন ১৩ জন আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীকে ওই হাসপাতালের এক আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে আফ্রিকা থেকে আসা একজন রয়েছেন, যিনি অমিক্রনে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। বাকিরা যুক্তরাষ্ট্র নয়তো ইউরোপের দেশ থেকে আসা।
বিশ্বের ৪০টির বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়া করোনার নতুন ধরন অমিক্রন ইতিমধ্যে ভারতে শনাক্ত হয়েছে। ভারতে প্রথম দুই রোগী শনাক্ত হয় কর্ণাটকের বেঙ্গালুরু শহরে।

এরপর গুজরাটের জামনগরে একজন ও মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ে একজন রোগী শনাক্ত হয়। চতুর্থ কোনো স্থান হিসেবে এবার দিল্লিতে অমিক্রন শনাক্ত হলো।

এখন পর্যন্ত ৪০টির বেশি দেশে অমিক্রন শনাক্ত হয়েছে, তবে কারোর মৃত্যু হয়নি। ব্যাপকভাবে জিনগত রূপ পরিবর্তনে সক্ষম এ ধরনটির বিস্তার ঠেকাতে বিশ্বব্যাপী নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করা হচ্ছে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, ডেলটা ও বেটা ধরনের তুলনায় অমিক্রনের পুনরায় সংক্রমিত করার ক্ষমতা তিন গুণ বেশি।