সেরামপ্রধান জানান, অমিক্রনের বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। করোনার নতুন এই ধরনটি সম্পর্কে আরও জানার পর এ বিষয়ে মতামতের জন্য পরামর্শ করা হবে। এ জন্য আরও কিছুটা সময় লাগবে।

আদর পুনাওয়ালা আরও বলেন, ‘অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরাও তাঁদের গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তাঁদের গবেষণার ফলাফলের ভিত্তিতে আমরা একটি নতুন টিকা নিয়ে আসতে পারি। এই টিকা ছয় মাসের মধ্যে একটি বুস্টার ডোজ হিসেবে কাজ করবে।’

সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান বলেন, শেষ পর্যন্ত যদি একটি বুস্টার ডোজের প্রয়োজন হয়ই, তাহলে তাঁর কোম্পানির কাছে যথেষ্ট পরিমাণে তা রয়েছে। আর একই দামেই তা পাওয়া যাবে।

বিশ্বজুড়ে করোনার নতুন ধরন অমিক্রন নিয়ে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। বিদ্যমান টিকাগুলো অমিক্রনের বিরুদ্ধে কার্যকর হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে বিজ্ঞানীদের। এই পরিস্থিতিতে নতুন টিকা তৈরির পথে হাঁটছে টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো। ইতিমধ্যে মডার্না, ফাইজার, জনসন, বায়োএনটেক নতুন ধরনের বিরুদ্ধে টিকা তৈরির কথা বলেছে। প্রয়োজনে নতুন টিকা তৈরির কথা বলেছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরাও।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নতুন ধরন অমিক্রন ঠেকাতে বিদ্যমান টিকা কাজ করবে না, এমন কোনো প্রমাণ নেই। প্রয়োজন পড়লে অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে দ্রুত নতুন টিকা তৈরি করতে প্রস্তুত গবেষকেরা।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনার টিকা ‘কোভিশিল্ড’ নামে উৎপাদন করছে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট।

প্রসিদ্ধ দ্য ল্যানসেট চিকিৎসা সাময়িকীতে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোভিশিল্ডের কার্যকারিতা খুব বেশি। এই টিকা করোনায় রোগীর হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর আশঙ্কা তাৎপর্যপূর্ণভাবে হ্রাস করে।

সম্প্রতি আফ্রিকা অঞ্চলে শনাক্ত হয় অমিক্রন। ধারণা করা হচ্ছে, ডেলটাসহ করোনার আগের সব ধরনের চেয়ে এটি অনেক বেশি সংক্রামক।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আশঙ্কা, নতুন এ ধরন বিশ্বের জন্য বড় ঝুঁকি তৈরি করতে পারে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের প্রায় এক ডজন দেশে করোনার নতুন ধরন অমিক্রনে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এই ধরনটির বিস্তার ঠেকাতে বিশ্বের প্রায় ৪০টির বেশি দেশ ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন