default-image

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের আর খুব বেশি দেরি নেই। এবার নন্দীগ্রাম আসনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হয়েছেন মমতা ব্যানার্জি আর ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) প্রার্থী হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। মমতা আজ মনোনয়নপত্র জমা দেবেন। আর আগামী শুক্রবার এই আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেবেন বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে হলদিয়ার মহকুমা প্রশাসকের হাতে মমতা মনোনয়নপত্র জমা দেবেন।

আগামী শুক্রবার বিজেপিতে নতুন যোগ দেওয়া বলিউড অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীকে নিয়ে শুভেন্দু অধিকারী মনোনয়নপত্র জমা দেবেন।

মমতা গতকাল নন্দীগ্রামে বলেছেন, এবার তাঁর আগে থেকেই ইচ্ছা ছিল সিঙ্গুর অথবা নন্দীগ্রাম আসন থেকে লড়ার। নন্দীগ্রামবাসী দাবি করায় তাঁদের ডাকে সাড়া দিয়ে তিনি সেখান থেকে দাঁড়াচ্ছেন। আর শুভেন্দু অধিকারীর জন্মস্থান এই নন্দীগ্রাম এলাকায়। পূর্ব মেদিনীপুরেই।

বিজ্ঞাপন

বিধানসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় ভোট হবে পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব মেদিনীপুরের ঐতিহাসিক আসন নন্দীগ্রামে। ২০০৭ সালে এই নন্দীগ্রামেই জমি অধিগ্রহণবিরোধী তীব্র আন্দোলন শুরু হয়েছিল। সে সময়ের বামফ্রন্ট সরকার নন্দীগ্রামে রসায়ন শিল্প এলাকা গড়ার জন্য ২৭ হাজার একর জমি অধিগ্রহণের উদ্যোগ নিয়েছিল। এর বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেন মমতা ও শুভেন্দুরা। হুগলির সিঙ্গুরেও টাটাকে ন্যানো গাড়ি কারখানা গড়ার জন্য বামফ্রন্ট সরকারের লিজ দেওয়া ৯৯৭ একর জমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধেও আন্দোলন চলে। তাতেও নেতৃত্ব দেন মমতা। সিঙ্গুর আর নন্দীগ্রামের আন্দোলনের পথ ধরে ২০১১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বামফ্রন্টের ৩৪ বছরের শাসনের অবসান ঘটিয়ে ক্ষমতায় আসেন তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গে ৮ দফায় নির্বাচন করার প্রতিবাদে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করা একটি জনস্বার্থ মামলা গতকাল মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ খারিজ করে দিয়েছেন। আইনজীবী মনোহর লাল শর্মা সুপ্রিম কোর্টে এই জনস্বার্থ মামলাটি করেছিলেন।

সুপ্রিম কোর্ট বলেছেন, যেহেতু এটি নির্বাচনসংক্রান্ত মামলা, সেহেতু এটি দায়ের করা যেত কলকাতা হাইকোর্টে। কিন্তু আবেদনকারী মামলাটি কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের না করে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করেন।

‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনিকে নির্বাচনী প্রচারের ধ্বনি হিসেবে ব্যবহার করা থেকে বিজেপিকে বিরত রাখতে ওই আইনজীবীর করা আবেদনও খারিজ করে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা শুভেন্দু অধিকারী নির্বাচনী প্রচারের নামে রাজ্যে অশান্তি ছড়াচ্ছেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদনও খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের ৮ দফা নির্বাচন শুরু হবে ২৭ মার্চ আর শেষ হবে ২৯ এপ্রিল। ফলাফল ঘোষিত হবে ২ মে। নির্বাচনকে শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ রাখতে ভারতের নির্বাচন কমিশন পশ্চিমবঙ্গের পুলিশের মহাপরিচালক (ডিজি) বীরেন্দ্রকে সরিয়ে দিয়েছে। বীরেন্দ্রর বদলে আইপিএস কর্মকর্তা নীরজনয়নকে এই রাজ্যে ডিজি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন