বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ বার্তা সংস্থা পিটিআইকে জানায়, ফেসবুকের মাধ্যমে ওই নারীর সঙ্গে অরুণ কুমারের পরিচয়। সম্পর্কের একপর্যায়ে অরুণ জানতে পারেন, ওই নারী বিবাহিত ও দুই সন্তানের মা। পরে সম্পর্ক রাখতে না চাইলে ওই নারী তাঁকে ব্ল্যাকমেল করা শুরু করেন। দাবি করেন অর্থ। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, অ্যাসিডে ঝলসে যাওয়া অরুণ দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলতে পারেন।

পুলিশ জানায়, ১৬ নভেম্বর ভগ্নিপতি ও এক বন্ধুকে নিয়ে আদিমালির একটি গির্জায় যাচ্ছিলেন অরুণ কুমার। এ সময় ওই নারীর সঙ্গে তাঁর দেখা হলে তিনি অরুণকে বকাঝকা করেন।

ঘটনাস্থলে থাকা সিসিটিভির ফুটেজ হাতে পেয়েছে পুলিশ। ওই ফুটেজে সেবাকে অরুণের পেছনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। একপর্যায়ে তিনি সামনে এসে অরুণের মুখে অ্যাসিড ছোড়েন। এ সময় সেবাও কিছুটা আহত হন।

তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতাল অরুণকে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে থিরুবনথাপুরাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

অ্যাসিড হামলার ঘটনায় গত শুক্রবার মামলা করেছে অরুণের পরিবার। পরদিন সেবাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন