কোরবেভ্যাক্স তৈরি করছে হায়দরাবাদভিত্তিক সংস্থা বায়োলজিক্যাল ই। এর আগে ভারতে কোভ্যাক্সিন টিকা তৈরি করেছে ভারত বায়োটেক।

এনডিটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অরোরা বলেন, পুনের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি ‘নোভাভ্যাক্স’ টিকার মতো ‘কোরবেভ্যাক্স’-এর কার্যকারিতাও ৯০ শতাংশ হতে চলেছে। আপাতত পরীক্ষায় দেখা গেছে, এই দুই টিকা সব বয়সীদের জন্যই নিরাপদ এবং এদের কার্যকারিতা কোভিডের সব ধরনের ক্ষেত্রে ৯০ শতাংশের বেশি।

অরোরা আরও বলেন, এই দুই টিকার মতো ভারতে আরও যেসব টিকা পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে সেগুলো বাজারে এসে গেলে গোটা পৃথিবী ভারতীয় টিকার ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়বে। সবচেয়ে বড় কথা, এসব টিকার দামও হবে সস্তা। কোরবেভ্যাক্স টিকার দুটি ডোজের দাম পড়বে ২৫০ রুপির মতো। ভারতে এই মুহূর্তে আরও অন্তত পাঁচটি টিকা তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা স্তরে রয়েছে।

ভারতে আপাতত তিনটি টিকার ব্যবহার হচ্ছে। কোভিশিল্ড, কোভ্যাক্সিন ও স্পুতনিক–ভি। এদের মধ্যে সবচেয়ে কম দামি টিকা কোভিশিল্ড। সরকার এর এক একটি ডোজের দাম বেঁধে দিয়েছে ৭৮০ রুপি। সে ক্ষেত্রে কোরবেভ্যাক্স হবে সত্যিই সস্তা।

অরোরা বলেন, দুই সংস্থা বছরে ১০০ কোটি ডোজ টিকা উৎপন্ন করতে পারবে। এতে বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলো উপকৃত হবে।