বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তবে, এর পাশাপাশি সকর্তবার্তাও দিয়েছেন এই বিশেষজ্ঞ। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘প্রায় অপ্রতিরোধ্য’। প্রায় সবাই এই ধরনে আক্রান্ত হতে পারেন। অমিক্রন যত দ্রুতগতিতে ছড়াচ্ছে তা টিকার বুস্টার ডোজ দিয়ে থামানো যাবে না।

ভারতের এই বিশেষজ্ঞ আরও বলেন, এই বুস্টার ডোজ নেওয়া না–নেওয়া কোনো পার্থক্য তৈরি করবে না। সংক্রমণ বাড়বেই। সারা বিশ্বে নির্বিশেষে এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে।

ইন্ডিয়ান মেডিকেল কাউন্সিলের এই বিশেষজ্ঞ আরও বলেন, এই ধরনে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তির ঝুঁকিও কম। এটা এখন এমন একটি রোগ, আমরা মোকাবিলা করতে পারব। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা করোনার যে ধরনটিকে মোকাবিলা করছি, তা বেশ খানেকটা আলাদা। এটা ডেলটা ভেরিয়েন্টের চেয়ে মৃদু। শুধু তাই নয়, বাস্তবিক অর্থেই এটি অপ্রতিরোধ্য।’

জয়প্রকাশ মৌলিল আরও বলেন, প্রাকৃতিকভাবে এই রোগের যে রোগ প্রতিরোধব্যবস্থা গড়ে ওঠে, তা মোটামুটি সারা জীবনের জন্য কাজ করবে। এ কারণেই অন্য দেশগুলোর মতো ভারত ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। তিনি বলেন, এই টিকা দেওয়া শুরুর আগেই ভারতে প্রায় ৮৫ শতাংশ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। তাই, প্রথম ডোজটি মূলত একটি বুস্টার ডোজ ছিল।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন