স্কুলে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগে ইডি গ্রেপ্তার করে পশ্চিমবঙ্গের সাবেক শিক্ষা, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার হয়েছেন পার্থর বান্ধবী হিসেবে পরিচিত মডেল অর্পিতা মুখার্জি। ইডি অর্পিতা মুখার্জির বেলঘরিয়া ও টালিগঞ্জ আবাসন থেকে নগদ ৪৯ কোটি ৮০ লাখ রুপিও উদ্ধার করেছে। উদ্ধারও হয়েছে প্রচুর পরিমাণ সোনা, গয়না ও বিদেশি মুদ্রাও। ইডি দাবি করেছে, এসব অর্থ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।

গতকাল বুধবার পার্থ-অর্পিতার দুর্নীতি মামলা শুনানিকালে কলকাতার নগর দায়রা আদালতের বিশেষ এজলাসে ইডির আইনজীবী ও সহকারী সলিসিটর জেনারেল এসভি রাজু বলেন, অর্পিতা মুখার্জির নামে বড় মাপের ৩১টি জীবনবিমা পলিসি রয়েছে। সব বিমাই রয়েছে অর্পিতার নামে। কিন্তু সব বিমার নমিনি করা হয়েছে বহিষ্কৃত সাবেক শিল্প, বাণিজ্য ও শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে।

এই বিপুল পরিমাণ অর্থ উদ্ধারের পরও পার্থ মুখ খোলেননি সাংবাদিকদের কাছে। দক্ষিণ কলকাতার জোকার ইএসআই হাসপাতালে রুটিনমাফিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে গত মঙ্গলবার হাসপাতাল থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকেরা তাঁর কাছে জানতে চেয়েছিলেন ওই টাকার উৎস নিয়ে। উত্তরে শুধু পার্থ বলেছিলেন, ‘আমার টাকা নেই। ওই টাকা আমার নয়। এটা ষড়যন্ত্র। সময় এলে সব জানতে পারবেন।’

কিন্তু কী ষড়যন্ত্র, কারা ষড়যন্ত্র করেছে, কারা আছেন এই ষড়যন্ত্রের পেছনে, সেসব কথা বলেননি পার্থ। আর তাতে ক্ষুব্ধ হয়েছে পার্থর দল তৃণমূল কংগ্রেস।

আজ বিকেলে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ও মুখপাত্র তাপস রায় ক্ষুব্ধ হয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘কী ষড়যন্ত্র, সেটা বলুক না পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বলুক কারা ষড়ন্ত্র করছে আদালতে। পার্থ চট্টোপাধ্যায় সারা জীবন তো ষড়যন্ত্র করে গেছেন। মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। এবার মুখ খুলে বলুক না কারা ষড়যন্ত্র করেছে তার সঙ্গে?’

তৃণমূলের আরেক সাংসদ শান্তনু সেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে একহাত নিয়ে আজ বিকেলে বলেছেন, দ্রুত তদন্ত হোক। বেরিয়ে আসুক ষড়যন্ত্রকারীদের নাম। বাংলার জনগণও চায়, সত্য উদ্‌ঘাটিত হোক।

সিপিএম নেতা শমীক লাহিড়ী বলেছেন, গোটা তৃণমূলই ষড়যন্ত্র করে। মানুষের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে। বিজেপির সাবেক রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা বলেছেন, আজ হোক বা কাল হোক, ষড়যন্ত্রের কথা ফাঁস হবেই। তখনই দেখা যাবে তৃণমূলের সততার মুখ। আর সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেছেন, শুধু পার্থ কেন, বাংলার মানুষই তো আজ তৃণমূলের ষড়যন্ত্রের শিকার। দিন আসবে, যখন তৃণমূলের মুখোশ খুলে যাবে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন