গত সোমবার ইডি পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখার্জির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দিয়েছে। সেই অভিযোগ পত্রে এ তথ্য উঠে এসেছে। এতে আরও বলা হয়েছে, অর্পিতা মুখার্জি এখন জীবনহানির ভয়ে দিন কাটাচ্ছেন। তিনি এখন চাইছেন সবকিছু খুলে বলতে। অর্পিতা মুখার্জি আরও আরজি জানিয়েছেন, তিনি একটি সন্তান দত্তক নিতে চান।

এর আগেও অর্পিতা মুখার্জি চেয়েছিলেন একটি সন্তান দত্তক নিতে। এ ব্যাপারে প্রস্তুতিও নিয়েছিলেন তিনি। এই লক্ষ্যে একটি সুপারিশ পত্রও নিয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে। অর্পিতা মুখার্জির বাড়ি তল্লাশির পর ইডি সেই সুপারিশ পত্রের কপিও পেয়েছিল।

অর্পিতা মুখার্জির টালিগঞ্জ ও বেলঘরিয়ার বাসভবন থেকে ইডি উদ্ধার করেছিল নগদ ৪৯ কোটি ৮০ লাখ রুপি ও ৫ কোটি রুপির স্বর্ণালংকার। গ্রেপ্তারের পর জেরার মুখে অর্পিতা মুখার্জি ইডির কাছে এক লিখিত আবেদনে জানিয়েছিলেন, উদ্ধার হওয়া অর্থ ও গয়না তাঁর নয়। বিভিন্ন সময় ওই অর্থ ও গয়না তাঁর বাসভবনে এনে রাখা হয়। ওই অর্থ ও গয়না পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।

অর্পিতা মুখার্জির বিরুদ্ধে দেওয়া অভিযোগ পত্রে আরও বলা হয়েছে, অর্পিতার নামে থাকা ৩১টি জীবন বিমার দেড় কোটি রুপির বার্ষিক প্রিমিয়ামও নিয়মিত জমা দিতেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। স্ত্রী বাবলী চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণের পর তাঁর নামে থাকা বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ারও হস্তান্তর করা হয়েছিল অর্পিতা মুখার্জির নামে। অর্পিতা মুখার্জি তাই এখন নিজেকে কলুষমুক্ত করতে রাজসাক্ষী হওয়ার আরজি জানিয়েছেন ইডির কাছে।

এদিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় রয়েছেন কলকাতার প্রেসিডেন্সি কারাগারে। গত ২২ জুলই তিনি গ্রেপ্তার হন। সম্প্রতি তিনি জামিনের আবেদন করেছিলেন। সেই আবেদন খারিজ করে তাঁকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত কারাগারে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন