মোহাম্মদ জুবায়েরকে গ্রেপ্তার করা হয় মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)–এর বিরুদ্ধে বিজেপি মুখপাত্র নূপুর শর্মার অবমাননাকর টিভি মন্তব্য টুইট করার পর। তবে সেই টুইট নয়, অপরাধ হিসেবে পুলিশ দাখিল করে ২০১৮ সালে করা তাঁর অন্য একটি টুইট। ওই টুইট ছিল ১৯৮৩ সালে তৈরি ও প্রদর্শিত হৃষিকেশ মুখোপাধ্যায়ের জনপ্রিয় হিন্দি সিনেমা ‘কিসিসে না ক্যাহনা’র একটি স্ক্রিন শট। তাতে দেখা যাচ্ছে, ‘হানিমুন হোটেল’ নামের এক হোটেলের সাইনবোর্ড নতুনভাবে রং করে ‘হনুমান হোটেল’ করা হয়েছে। সেই ছবিজুড়ে টুইটে মোহাম্মদ জুবায়ের লিখেছিলেন, ‘২০১৪ সালের আগে হানিমুন হোটেল, ২০১৪ সালের পর হনুমান হোটেল।’ দিল্লি পুলিশের অভিযোগ, ওই টুইটের মাধ্যমে তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করে দাঙ্গা বাধানোয় প্ররোচনা জুগিয়েছেন। যদিও ঘটনা হলো, গত চার বছরে ওই টুইটের কারণে দেশের কোথাও কোনো রকম উত্তেজনা দেখা দেয়নি।

দিল্লি মামলায় সুপ্রিম কোর্ট থেকে জামিন পেলেও উত্তর প্রদেশের বিভিন্ন শহরে দাখিল হওয়া মামলায় নিম্ন আদালত জামিন না দেওয়ায় জুবায়েরকে জেলে থাকতে হচ্ছিল। বুধবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, সূর্যকান্ত এবং এ এস বোপানা সব মামলায় অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়ে বলেন, এদিন (বুধবার) সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যেই তাঁকে মুক্তি দিতে হবে। সুপ্রিম কোর্ট বলেছেন, সব মামলা একত্র করে দিল্লি হাইকোর্টে শুনতে হবে। এই টুইটের কারণে অন্য কোথাও নতুন করে এফআইআর দাখিল হলে সেই মামলাও দিল্লি হাইকোর্টে একসঙ্গে শুনতে হবে। নতুন এফআইআরের কারণে জুবায়েরকে গ্রেপ্তারও করা যাবে না।

বুধবার শুনানি চলাকালে উত্তর প্রদেশের অতিরিক্ত অ্যাডভোকেট জেনারেল গরিমা প্রসাদ বলেন, জামিন পেলেও মোহাম্মদ জুবায়ের যাতে কোনো রকম টুইট করতে না পারেন, আদালত তা নিশ্চিত করুন। সেই আবেদন নস্যাৎ করে বিচারপতি চন্দ্রচূড় বলেন, ‘এই দাবি একজন আইনজীবীকে সওয়াল করতে না বলার মতোই। একজন সাংবাদিককে কী করে বলা যায়, তিনি লিখবেন না বা কোনো শব্দ উচ্চারণ করবেন না?’

বিচারপতি বলেন, ‘মোহাম্মদ জুবায়ের আপত্তিকর কিছু লিখলে আইনের কাছে তাঁকে জবাবদিহি করতে হবে। কিন্তু তিনি কিছু লিখবেন না বা বলবেন না—এই শর্তে জামিন দেওয়া যায় না।’ জুবায়ের যাতে সাক্ষ্য–প্রমাণ নষ্ট না করেন, জামিনের সঙ্গে সেই শর্ত জোড়ার অনুরোধ জানালে গরিমা প্রসাদের উদ্দেশে বিচারপতি চন্দ্রুচূড় বলেন, ‘যাবতীয় সাক্ষ্য–প্রমাণ জনসাধারণের সামনেই রয়েছে।’

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন