বিজেপির নির্বাচনী প্রতীকও পদ্ম ফুল। কিন্তু সেই পদ্মের পাপড়ি পাঁচটি। জি-২০ লোগোর পদ্মে সাতটি পাপড়ি। কিন্তু তাতে কী? কংগ্রেস মুখপাত্র জয়রাম রমেশ ওই মনোভাব ও আচরণকে ‘জঘন্য’ বলেছেন। টুইট করে তিনি বলেছেন, ’৭০ বছর আগে জওহরলাল নেহরু কংগ্রেসের পতাকাকে জাতীয় পতাকা করার প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছিলেন। অথচ আজ ভারতের সভাপতিত্বের সময় বিজেপির নির্বাচনী প্রতীককে জি-২০ র সরকারি প্রতীক করে দেওয়া হলো। জঘন্য। অবশ্য এত দিনে আমরা সবাই জেনে গেছি নির্লজ্জভাবে নিজেদের ঢাক পেটানোর কোনো সুযোগই মিস্টার মোদি ও বিজেপি ছাড়েন না।’

জয়রামকে আক্রমণ করতে সময় নষ্ট করেনি বিজেপি। তাদের মুখপাত্র শেহজাদ পুনাওয়ালা পাল্টা টুইট করে বলেন, ‘পদ্ম আমাদের জাতীয় ফুল। মা লক্ষ্মীর আসনও পদ্মের ওপর। আপনি কি আমাদের জাতীয় ফুলের বিরোধী? কমলনাথ থেকে আপনি কি কমল (পদ্ম) মুছে দেবেন? যাকগে, রাজীবের অর্থও পদ্ম। আশাকরি এতে আপত্তি নেই।’ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ পুরী বলেন, ‘ঈশ্বরই জানেন কংগ্রেস কেন সব সময় সব রাষ্ট্রীয় প্রতীক অবমাননা করে। ১৯৫০ সালে কংগ্রেস সরকারই পদ্মকে রাষ্ট্রীয় ফুলের মর্যাদা দিয়েছিল। জয়রাম রমেশের জন্মের ৪ বছর আগে।’

আন্তর্জাতিক মঞ্চে পদ্মের আবির্ভাব ঘটিয়ে মোদি বলেন, ‘এখন পৃথিবী জুড়ে ভূকৌশলগত ও অর্থনৈতিক সংকট চলছে। চলছে অশান্তি। এমন এক সন্ধিক্ষণে ভারত জি-২০র সভাপতিত্ব গ্রহণ করছে। এই অসময়ে আশার প্রতীক হলো পদ্ম। লোগোতে সেই আশার প্রতীককেই চিত্রিত করা হয়েছে। পরিস্থিতি যত প্রতিকূলই হোক না কেন পদ্ম ফুল ঠিক ফোটে।’