গত ২১ জুন আসামের রাজধানী গুয়াহাটিতে বসেছিল শান্তি প্রসাদ ও মিন্টু রায়ের বিয়ের আসর। তখনই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হন তাঁরা। কারণটা ছিল, তাঁদের বিয়ের বিচিত্র চুক্তিপত্র। সেদিন চুক্তির এক টুকরা কাগজে সই করে বিয়ে করেন শান্তি–মিন্টু। ওই কাগজে লেখা ছিল, কী করবেন আর কী করবেন না। তালিকায় ছিল প্রতিদিন শরীরচর্চা করা, প্রতি ১৫ দিন পর পর কেনাকাটা করা ও প্রতি মাসে একবার পিৎজা খাওয়া।

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হওয়ার পরদিন চুক্তি সইয়ের একটি ভিডিও ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা হয়। অভিনব চুক্তিতে ওই নবদম্পতির সই করার ১৬ সেকেন্ডের ভিডিওটি অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মুহূর্তেই সাড়া ফেলে। এর পর থেকে সাড়ে চার কোটির বেশি মানুষ ভিডিওটি দেখেন, মন্তব্য করেন অনেকেই।

শান্তি ও মিন্টুর বিয়ের চার মাস পেরোতে চলেছে। তবে তাঁরা এ সময়ে চুক্তির শর্ত কতটা মেনে চলতে পেরেছেন, তা জানা যায়নি। তবে তাঁরা চুক্তি অনুসারে নিয়মিত যে পিৎজা খাবেন, তা প্রায় নিশ্চিত। কারণ, একটি পিৎজা কোম্পানি প্রতি মাসে একটি করে পিৎজা পাঠিয়ে দেবে এই দম্পতির জন্য।

অবাক হলেও সত্যি, করবা চৌথ উৎসবে (স্বামীর আয়ু বৃদ্ধির জন্য স্ত্রীর উপবাস) পিৎজা হাট ইন্ডিয়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক বছরের জন্য শান্তি–মিন্টু দম্পতিকে প্রতি মাসে একবার বিনা মূল্যে পিৎজা উপহার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে ওই পিৎজা কোম্পানির দোকানে গিয়ে শান্তি ও মিন্টুকে বিভিন্ন রকমের সুস্বাদু পিৎজার স্বাদ নিতে দেখা গেছে। অর্ডার করার পর তাঁরা একসঙ্গে বেশ কয়েকটি সেলফিও তোলেন। গত বৃহস্পতিবার পোস্ট করা ওই ভিডিও এ পর্যন্ত ৩০ হাজারবার দেখা হয়েছে। এতে ১ হাজার ৩০০ লাইক পড়েছে।