আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি এক বিশেষ সমাবর্তন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মমতার হাতে তুলে দেওয়া হবে এই সাম্মানিক ডি-লিট। ২০১৮ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ও মমতাকে সাম্মানিক ডি-লিট দিয়েছিল। তখন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর হাত থেকে এই সাম্মানিক ডি-লিট নিয়েছিলেন মমতা। এ ছাড়া ওডিশার ভুবনেশ্বরের কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি থেকেও তাঁকে সাম্মানিক ডক্টরেট ডিগ্রি দেওয়া হয়েছিল।

এ বছর পশ্চিমবঙ্গ বাংলা একাডেমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁর অবদানের জন্য ‘আকাদেমি পুরস্কার’ দেওয়া হয়। তাঁর লেখা ‘কবিতা বিতান’ কাব্যগ্রন্থের জন্য তাঁকে দেওয়া হয় আকাদেমি সম্মান। তবে সেই পুরস্কার নিয়ে প্রবল সমালোচনা হয়। ‘কবিতা বিতান’-এ মমতার ৯৪৬টি কবিতা ঠাঁই পেয়েছে। অন্যদিকে তাঁর জীবন নিয়ে ২০১৯ সালে তৈরি হয়েছে ‘বাঘিনী’ নামের একটি চলচ্চিত্র।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা এই নিয়ে তিনবারের জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসেছেন। গত দুই দশকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাঁর লেখা ১১৪টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। এ বছর হয়েছে ১২টি। তাঁর আঁকা ছবি বিক্রি হয়েছে ৩০০টির বেশি।