এক টুইটে ভারতীয় হাইকমিশন জানায়, বৈঠকে বিশেষ করে এই জটিল সন্ধিক্ষণে গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক কাঠামো বহালে পার্লামেন্টের ভূমিকার প্রশংসা করেন হাইকমিশনার বাগলে।

ভারতীয় মিশন আরও লিখেছে, শ্রীলঙ্কায় গণতন্ত্র, স্থিতিশীলতা ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে (ভারতের পক্ষ থেকে) সমর্থন জানিয়ে যাওয়ার বার্তা পৌঁছে দেওয়া হয়।

গত সাত দশকের মধ্যে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। বৈদেশিক মুদ্রার মারাত্মক স্বল্পতার কারণে দেশটির খাদ্য, জ্বালানি ও ওষুধসহ প্রয়োজনীয় জিনিস আমদানি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

সরকারের বিরুদ্ধে গণ–আন্দোলনের মুখে গোতাবায়া রাজাপক্ষে দেশ ছেড়ে পালাতে এবং পদত্যাগে বাধ্য হন। এতে এই অর্থনৈতিক সংকট থেকে ব্যাপক রাজনৈতিক সংকটের সৃষ্টি হয়েছে।

গোতাবায়া বর্তমানে সিঙ্গাপুরে আছেন। তাঁর জায়গায় নতুন নেতা নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করতে শনিবার শ্রীলঙ্কার আইনপ্রণেতারা মিলিত হয়েছেন।

২ কোটি ২২ লাখ মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণে আগামী ছয় মাসে ভারতের দক্ষিণের দ্বীপরাষ্ট্রটির ৫০০ কোটি ডলার প্রয়োজন। নিত্যপণ্যের স্বল্পতা ও লোডশেডিংয়ের কারণে হিমশিম খাচ্ছে দেশটির জনগণ।

চলতি বছর শ্রীলঙ্কার বিদেশি সহায়তার প্রধান উৎসে পরিণত হয়েছে ভারত। এখন পর্যন্ত ভারত ৩৮০ কোটি ডলার সমপরিমাণের সহায়তা দ্রুততার সঙ্গে চূড়ান্ত ও সরবরাহ করেছে বলে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন