সেই আবেদনের শুনানিতে ১ জুলাই সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি সূর্যকান্ত এবং জে বি পর্দিওয়ালা নূপুর সম্পর্কে অত্যন্ত কঠোর মন্তব্য করে বলেছিলেন, তিনি একাই গোটা দেশে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছেন। দেশবাসীর কাছে তাঁর ক্ষমা চাওয়া উচিত। সেই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে নূপুর তাঁর আরজি প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন।

একই আরজি নিয়ে আজ নূপুর শর্মা আবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন। নূপুরের আইনজীবী মনিন্দর সিং বলেন, নূপুর প্রাণ সংশয়ে রয়েছেন। রাজ্যে রাজ্যে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। একাধিক ব্যক্তি তাঁকে ধর্ষণ ও হত্যার হুমকি দিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে রাজ্যে মামলায় হাজির হওয়া তাঁর পক্ষে সম্ভবপর হচ্ছে না। অতএব, সব মামলা একত্র করে বিচারের সুযোগ দেওয়া হোক।

যেসব রাজ্যে নূপুরের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে, সেই রাজ্যকে এ–সংক্রান্ত নোটিশ পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারপতি সূর্যকান্ত এবং পর্দিওয়ালা। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারদের তাঁর নিরাপত্তাব্যবস্থা নিশ্চিত করার বিষয়েও নোটিশ পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়। নূপুরের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগটি দায়ের হয়েছিল দিল্লিতে। এরপর একে একে পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক, উত্তর প্রদেশ, আসাম ও জম্মু–কাশ্মীরে তাঁর বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করা হয়। কলকাতা পুলিশ নূপুরের বিরুদ্ধে পলাতক ব্যক্তি হিসেবে নোটিশও জারি করেছে।

বিচারপতিদের প্রশ্নের জবাবে আজ নূপুরের আইনজীবী এজলাসে বলেন, প্রথম মামলার আবেদন যেহেতু দিল্লিতে দাখিল হয়েছে, সেহেতু দিল্লি হাইকোর্টেই বিচার শুরু হোক। ১০ আগস্ট পরবর্তী শুনানিতে এই বিষয়ে আদালত সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন