আদালতে আজ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী বলেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাসভবন বা তাঁর কোনো স্থাপনা বা হেফাজত থেকে কোনো অর্থ বা সোনা বা সম্পত্তি উদ্ধার করতে পারেনি ইডি। যা কিছু উদ্ধার হয়েছে, তা সবই অর্পিতা মুখার্জির হেফাজত থেকে। তা ছাড়া পার্থ-অর্পিতার নামে যেসব দলিল–দস্তাবেজ ইডি উদ্ধার করেছে, তা–ও সব নকল বলে আদালতে জানান পার্থর আইনজীবী। বলেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায় এখন আর সরকারের কোনো পদে নেই। মন্ত্রিত্ব নেই। তিনি একজন সাধারণ মানুষ। তাঁর পালিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা নেই। জামিন পেলে তিনি জামিনের শর্ত ভঙ্গ করবেন না।

আদালত যে শর্তেই জামিন দিক না কেন, পার্থ চট্টোপাধ্যায় তা মেনে নেবেন। দরকার হলে পার্থ চট্টোপাধ্যায় তাঁর বিধায়ক পদ থেকেও ইস্তফা দিতে রাজি। পার্থর আইনজীবী আরও বলেন, এই মামলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বলির পাঁঠা করা হয়েছে।

অন্যদিকে অর্পিতা মুখার্জির আইনজীবী দাবি করেছেন, তাঁর মক্কেলের জীবন এখন সংশয়ের মুখে। তাঁর জীবনের নিরাপত্তার জন্য আদালত যেন কারাগারে তাঁর জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করে।

এদিকে গতকাল এক আদেশে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মেয়ে ও জামাতাকে কলকাতায় এসে ইডি দপ্তরে হাজির হতে বলেছে ইডি। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ে মেয়ে-জামাতা যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন।

ডিসেম্বরের মধ্যে সিএএ

আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে সিএএ বা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন কার্যকর হতে পারে বলে পশ্চিমবঙ্গের হরিণঘাটার বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এই আইন অবিলম্বে কার্যকর করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার উদ্যোগ নিয়ে খসড়া তৈরি শুরু করেছে।

এদিকে আজ আবার সিবিআই পশ্চিমবঙ্গের চাঞ্চল্যকর সীমান্তের গরু পাচার মামলায় সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য বীরভূম জেলার তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে ডাকা হয়েছে। আগামী সোমবার বেলা ১১টায় কলকাতার সিবিআই দপ্তর নিজামপ্যালেসে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় তাঁকে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন