জো বাইডেন বলেন, ‘আমরা একসঙ্গে পথ চলব। চীন, রাশিয়া বা ইরানকে পূরণের জন্য কোনো শূন্যতা রাখব না।’

বাইডেনের মধ্যপ্রাচ্য সফরের শেষভাগে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গালফ কো–অপারেশন কাউন্সিলের ছয় সদস্যের পাশাপাশি মিসর, জর্ডান ও ইরাক এ সম্মেলনে অংশ নিয়েছে। সম্মেলনে বাইডেনের সঙ্গে এসব দেশের শীর্ষ নেতারা জ্বালানি ও আঞ্চলিক নিরাপত্তা, খাদ্যনিরাপত্তা, অর্থনৈতিক নিরাপত্তা, ইরান–ইসরায়েল ইস্যুসহ বেশ কয়েকটি বিষয়ে আলোচনা করেন।

আজকের শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান (এমবিএস)। তবে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না।

জেদ্দায় এই সম্মেলনের পেছনে বাইডেনের অন্যতম লক্ষ্য ছিল আরব বিশ্বের সঙ্গে ইসরায়েলকে একীভূত করা এবং ইরানের বিরুদ্ধে আরব বিশ্বের যৌথ পদক্ষেপকে উৎসাহিত করা। যুক্তরাষ্ট্রের এক শীর্ষ কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, এই অঞ্চলে যতটা সম্ভব সক্ষমতা যুক্ত করার অসামান্য মূল্য রয়েছে। ইসরায়েলের কাছে প্রয়োজনীয় আকাশ ও ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা রয়েছে। আমরা এসব নিয়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা করেছি।’

মধ্যপ্রাচ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন