বিভিন্ন আন্তর্জাতিক বৈঠকে বিশ্বনেতাদের অপেক্ষা করানোর জন্য পুতিনের বেশ ‘নামডাক’ আছে। কখনো কখনো কয়েক ঘণ্টাও অপেক্ষা করিয়েছেন তিনি। কিন্তু এবার সেই পুতিনের অপেক্ষা করা নিয়ে তুরস্কের সংবাদমাধ্যমে বেশ আলোচনা হচ্ছে। ২০২০ সালে মস্কোতে একটি বৈঠকের স্মৃতি মনে করিয়ে দিয়ে এমনই এক খবরে বলা হয়, ওই সময় এরদোয়ানকে দুই মিনিট অপেক্ষা করিয়েছিলেন পুতিন। তুরস্কের টি-২৪ অনলাইন শিরোনাম করেছে, ‘এটা কি প্রতিশোধ ছিল।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ভিডিও ক্লিপ বেশ সাড়া ফেলেছে। মধ্যপ্রাচ্যের একটি সংবাদমাধ্যমের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক জইসি করিম টুইটারে লিখেছেন, ‘৫০ সেকেন্ডের ভিডিওতে ক্যামেরার সামনে অপেক্ষারত পুতিনকে উসখুস করতে দেখা গেছে। এ দৃশ্যই বলে দেয় ইউক্রেন যুদ্ধের পর পরিস্থিতি কতটা বদলেছে।’

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালানোর নির্দেশ দেন প্রেসিডেন্ট পুতিন। এরপর রুশ বাহিনীর হাতে হাজারো ইউক্রেনীয় মারা পড়েছেন, বাস্তুচ্যুত হয়েছেন কয়েক লাখ মানুষ। যুদ্ধের কারণে ইউক্রেন থেকে অন্যান্য দেশে গম ও শস্য রপ্তানি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে; যা বৈশ্বিক খাদ্যসংকট নিয়ে উদ্বেগ তৈরি করেছে।
গত মঙ্গলবার এরদোয়ানের সঙ্গে বৈঠকে পুতিন বলেন, ইউক্রেন থেকে শস্য রপ্তানি নিয়ে আলোচনায় উল্লেখযোগ্য ‘অগ্রগতি’ হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন