ইসরায়েলি পত্রিকা হারেৎজ জানিয়েছে, নিহত ইসরায়েলি হলেন রোনেন হানানিয়া (৪৯)। হেবরনের একটি তল্লাশিচৌকির কাছে ওই গুলির ঘটনা ঘটেছে। অন্যদিকে ফিলিস্তিনি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, নিহত ফিলিস্তিনির নাম মোহাম্মাদ আল-জাবারি (৩৫)। তাঁকে নিজেদের সদস্য বলে জানিয়েছে গাজার শাসকগোষ্ঠী হামাস। তিনিও হেবরনের বাসিন্দা।

এমন একসময় এ ঘটনা ঘটল যখন আগামী ১ নভেম্বর ইসরায়েলের পার্লামেন্ট নেসেটের নির্বাচন। যে তল্লাশিচৌকির কাছে ইসরায়েলিকে গুলি করা হয়, সেটির কাছেই কিরাত আরবা বসতি। সেখানে ডানপন্থী একদল ইসরায়েলি বসবাস করেন।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী বলেছে, ওই এলাকায় আরও সন্দেহভাজনের খোঁজে তারা তল্লাশি চালাচ্ছে। সংবাদ সংস্থা মাআন জানিয়েছে, এ ঘটনায় নিহত আল-জাবারির ভাইসহ অন্তত তিন ফিলিস্তিনিকে হেবরন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই হামাস সদস্যের হামলার লক্ষ্য তাঁর হেবরনের বাসভবন ছিল বলে এক টুইট বার্তায় দাবি করেন ইসরায়েলের উগ্র ডানপন্থী আইনপ্রণেতা ইতামার বেন-জিভির। ইতামার উগ্র ডানপন্থী ইহুদিবাদী জোট রিলিজিয়াস জায়োনিজম জোট আসন্ন নির্বাচনে বড় ধরনের সাফল্যের আশা করছে। তবে ইসরায়েলি বাহিনী বেন-জিভিরের ওই দাবির সত্যতা পায়নি।

চলতি বছরে পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযানকে কেন্দ্র করে তাদের সঙ্গে ফিলিস্তিনের মধ্যে সংঘাত বেড়ে চলছে। গত মার্চ থেকে এ পর্যন্ত সেখানে শতাধিক ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।