default-image

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কৃষিকে মানুষের টিকে থাকার কেন্দ্রস্থল হিসেবে বর্ণনা করে বিশ্ব থেকে দারিদ্র্য ও ক্ষুধা নিরসনের জন্য পাঁচ দফা আলোচ্যসূচি (অ্যাজেন্ডা) বাস্তবায়নের প্রস্তাব করেছেন। আজ বুধবার ইতালির রোমে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিলের (আইএফএডি) গভর্নিং কাউন্সিলের উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য দেন ইমরান খান।

ভার্চ্যুয়াল ওই অনুষ্ঠানে তিনি টেকসই কৃষি উন্নয়নে বিনিয়োগের আহ্বান জানানোর পাশাপাশি খাদ্যপণ্যের যথাযথ ও ন্যায্য দাম নিশ্চিত করা, নতুন প্রযুক্তি প্রয়োগ ও খাদ্য গ্রহণ এবং উৎপাদনের ধরন পুনর্বিবেচনার কথা বলেন। পাকিস্তানের এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

ইমরান খান তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘আগামী বছরের ফুড সিস্টেমস সম্মেলনের জন্য আমি টেকসই খাদ্য উৎপাদন ও গ্রহণের জন্য নতুন নীতি যেন বিবেচনা গ্রহণ করা হয়, সে প্রস্তাব করছি।’

ইমরান খান তাঁর মূল বক্তব্য উপস্থাপনার সময় করোনা মহামারিতে বিভিন্ন দেশের, বিশেষ করে উন্নয়নশীল দেশগুলোর অর্থনৈতিক দুর্দশার কথা বলেন। এতে ১০ কোটির বেশি মানুষকে চরম দারিদ্র্যের দিকে ঠেলে দিয়েছে। তিনি করোনা মহামারি মোকাবিলায় পাকিস্তান সরকার গৃহীত পদক্ষেপের কথাও জানান।

জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার এক–চতুর্থাংশেরই নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবারের সুবিধা নেই। বিশ্বের প্রতিটি অঞ্চলেই অনেক মানুষ, বিশেষ করে গরিবদের কাছে স্বাস্থ্যকর খাবারের সামর্থ্য নেই।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন