২০১৮ সালে ইমরান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। মেয়াদপূর্তির আগেই তাঁর সরকারের পতন হয়।

গত ৯ এপ্রিল পাকিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে বিরোধী জোটের আনা অনাস্থা ভোটে হেরে ক্ষমতাচ্যুত হয় ইমরানের নেতৃত্বাধীন পিটিআই সরকার।

ইমরানের বিদায়ের পর বিরোধীরা জোট সরকার গঠন করে। এ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হন পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) সভাপতি শাহবাজ শরিফ। দেশটির বর্তমান ক্ষমতাসীন জোটের অংশ জারদারির পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)।

ইমরান বলেন, তাঁরা এই মাফিয়াদের লুটপাট চালিয়ে যেতে দেবেন না।

পিটিআই প্রধান বলেন, ‘আমরা শ্রীলঙ্কার অবস্থা থেকে বেশি দূরে নই, যখন আমাদের জনগণ রাস্তায় নেমে আসবে।’

ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে আগাম নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছেন ইমরান। তবে এই দাবি নাকচ করেছে শাহবাজের নেতৃত্বাধীন জোট সরকার।

আগামী বছরের আগস্ট পর্যন্ত মেয়াদ পূর্ণ করেই জাতীয় নির্বাচন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জোট সরকারের শরিকেরা।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন