বাড়িটির কাজ শেষ হওয়ার পর সেটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পায়। তাঁদের অনেকে বাড়িটির পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় একটু থেমে গোলাপি ফটকের সঙ্গে ছবি তুলতেন। তবে রংটি নিয়ে আপত্তি তুলেছে এডিনবরা শহর কর্তৃপক্ষ।

এডিনবরা শহর কর্তৃপক্ষের আইন অনুযায়ী, বাড়ির ফটকে অবশ্যই অনুজ্জ্বল রং করতে হবে। মিরান্ডাকে গোলাপি রং বদলে সাদা রং করতে বলেছে তারা। এ নির্দেশ না মানলে জরিমানা দিতে হবে। এতে চটেছেন মিরান্ডাও। তাঁর ভাষ্যমতে, এই নির্দেশের পেছনে শহর কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্য একদম ভালো নয়।

ফটকের রঙের বিষয়ে মিরান্ডা বলেন, ‘ব্রিস্টল, নটিং হিল ও হ্যারোগেটের মতো যুক্তরাজ্যে অনেক শহর রয়েছে, যেখানে ফটকে উজ্জ্বল রং করা হয়। আমি যখন বাড়িতে ফিরি, বাড়ির ফটক দেখে একধরনের ভালো লাগা কাজ করে।’

শেষ পর্যন্ত অবশ্য বাড়ির ফটকের রং বদলাতে রাজি হয়েছেন মিরান্ডা। তবে শহর কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী সাদা নয়, এবার তাঁর পছন্দের রং গাঢ় লাল। ওই এলাকায় নাকি লাল ফটকের আরও একটি বাড়ি রয়েছে।