default-image

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুতে এক বছরের কম সময়ের মধ্যে পাঁচজন পররাষ্ট্রমন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। করোনাভাইরাসের টিকা কেলেঙ্কারির ঘটনায় সবশেষ পদত্যাগ করেন এলিজাবেথ এস্তেতে। এরপর গতকাল সোমবার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন প্রখ্যাত কূটনীতিক আলান ওয়াগনার (৭৯)।

দক্ষিণ আমেরিকায় করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর একটি পেরু। সম্প্রতি পেরুর একটি সংবাদপত্রের প্রকাশিত অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটিতে টিকাদান কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরুর বেশ কয়েক সপ্তাহ আগে, এমনকি কয়েক মাস আগে করোনা টিকা নেন দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা। সাধারণ মানুষকে টিকা দেওয়ার আগে সরকারি কর্মকর্তাদের গোপনে টিকা নেওয়ার বিষয়টি দেশটিতে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়। সেই সূত্র ধরেই গত সপ্তাহে পদত্যাগ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী পিলার মাজেত্তি। আর রোববার পদত্যাগ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এলিজাবেথ এস্তেতে। তিনি টুইট করেন, পেরুর প্রেসিডেন্ট ফ্রান্সিসকো সাগাস্তি তাঁর পদত্যাগপত্র আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেছেন।

বিজ্ঞাপন

ওই অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, আগেভাগে টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে সাবেক প্রেসিডেন্ট মার্টিন ভিজকারাও রয়েছেন। তিনি গত অক্টোবর মাসে চীনের তৈরি সিনোফার্মের টিকা নেন। পেরুতে চলতি মাসের প্রথম দিকে শুধু স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকাদানের মাধ্যমে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে সাধারণ নাগরিকদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়নি দেশটিতে।

প্রেসিডেন্ট ফ্রান্সিসকো সাগাস্তি গতকাল সোমবার রাতে টেলিভিশনে ভাষণের মাধ্যমে জানান, প্রায় ৫০০ লোক ‘অন্যায্য উপায়ে’ টিকা নিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে দুজন মন্ত্রী ও অন্য সরকারি কর্মকর্তারা রয়েছেন। ওই দুই মন্ত্রী বলতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এলিজাবেথ এস্তেতে ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী পিলার মাজেত্তিকে বুঝিয়েছেন। ক্ষমতাকে ব্যবহার করে সিনোফার্মের টিকা নেন তাঁরা। মানবদেহে পরীক্ষার জন্য ওই টিকা পেরুকে দিয়েছিল সিনোফার্ম।

দক্ষিণ আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন