এর আগে গত মার্চের শেষের দিকে জনমত জরিপ পরিচালনা করেছিল রয়টার্স/ইপসোস। কিয়েভের উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন রাস্তা থেকে বেসামরিকদের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় বিশ্বজুড়ে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ার আগেই ওই জরিপ চালানো হয়েছিল। তখন ৬৮ শতাংশ মার্কিন নাগরিক বলেছিলেন, তাঁরা ইউক্রেনে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র সরবরাহকে সমর্থন করেন।

এর প্রায় এক মাসের মাথায় পরিচালিত জরিপে সে সংখ্যা বেড়ে ৭৩ শতাংশ হয়েছে।
জরিপে দেখা গেছে, ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ রাশিয়ায় মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে সমর্থন জানিয়েছেন। তাঁরা বলছেন, ইউক্রেনের জন্য সামরিক সহায়তা পাঠানোকে সমর্থন দিচ্ছেন, এমন প্রার্থীদের ৮ নভেম্বর মধ্যবর্তী কংগ্রেসনাল নির্বাচনে ভোট দেবেন তাঁরা।

ওয়াশিংটন ও মস্কোর মধ্যে উত্তেজনা ক্রমাগত বাড়ছে। এতে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে যে রাশিয়া এসব নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করতে পারে। জরিপ অনুযায়ী, প্রায় ৫০ শতাংশ মার্কিন নাগরিক মনে করেন, অনলাইনে ভুয়া তথ্য ছড়ানোর মধ্য দিয়ে রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস নির্বাচনে প্রভাব ফেলার চেষ্টা করবে।

ইউক্রেনে রুশ হামলার এখন তৃতীয় মাস চলছে। জরিপে দেখা গেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অন্য কাজগুলোর চেয়ে ইউক্রেন সংকটকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন মার্কিন নাগরিকেরা।

৭০ শতাংশ ডেমোক্র্যাট, ২৪ শতাংশ রিপাবলিকানসহ প্রায় ৪৬ শতাংশ মার্কিন নাগরিক ইউক্রেন প্রশ্নে বাইডেনের অবস্থানকে সমর্থন করেন। অর্থনীতি প্রশ্নে বাইডেনের পদক্ষেপগুলো সমর্থন করে ৩২ শতাংশ মানুষ।

রয়টার্স/ইপসোস পরিচালিত আলাদা আরেকটি জরিপে দেখা গেছে, মাত্র ৪২ শতাংশ মানুষ প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সব কাজকে সমর্থন করেন। এ জরিপও মঙ্গলবার শেষ হয়।

রয়টার্স/ইপসোসের দুটি জরিপই অনলাইনে ইংরেজিতে পরিচালিত হয়েছে। ১ হাজার ৫০০ মানুষের মধ্যে আলাদা করে প্রতিটি জরিপ চালানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন