default-image

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনী রাজনীতিতে আলোচিত নাম কমলা হ্যারিস। তিনি ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেনের রানিংমেট হয়ে ইতিহাস গড়েছেন। কমলার মা ও বাবা বিশ্বের দুটি ভিন্ন প্রান্তে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক এলাকায় বেড়ে ওঠেন। তারপর কীভাবে তাঁদের দেখা হলো, তা উঠে এসেছে দ্য নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার প্রতিবেদনে।

কমলার বাবা ডোনাল্ড হ্যারিস। তাঁর জন্ম জ্যামাইকায়। সেখানেই বেড়ে ওঠেন। ডোনাল্ড হ্যারিস ১৯৬১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বার্কলের ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটিতে পড়তে যান।

বিজ্ঞাপন
default-image

কমলার মা শ্যামলা গোপালন। তিনি ভারতীয়। এই বিজ্ঞানীও উচ্চতর শিক্ষার জন্য ওই সময় যুক্তরাষ্ট্রে যান। তাঁরও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বার্কলের ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটি।

পড়াশোনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর সেখানেই ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালনের মধ্যে পরিচয় হয়।

১৯৬২ সালের ঘটনা। বার্কলের ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসের বাইরের একটি স্থানে কৃষ্ণাঙ্গ শিক্ষার্থীদের একটি ছোট সমাবেশে বক্তৃতা করছিলেন পিএইচডি শিক্ষার্থী ডোনাল্ড হ্যারিস। সেই সমাবেশের একজন শ্রোতা ছিলেন শ্যামলা গোপালন।

বিজ্ঞাপন
default-image

২৪ বছর বয়সী ডোনাল্ড হ্যারিসের বক্তৃতা শেষে তাঁর কাছে যান শ্যামলা গোপালন। তিনি তাঁর পরিচয় দেন।

ডোনাল্ড হ্যারিসের বক্তৃতা শ্যামলা গোপালনের মধ্যে কিছু প্রশ্নের জন্ম দিয়েছিল। ডোনাল্ড হ্যারিসের কাছ থেকে আরও কিছু জানতে চেয়েছিলেন তিনি। সে কথা তাঁকে জানান।

ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালনের মধ্যে সেদিনের আলোচনা সেখানেই শেষ হয়ে যায়নি; বরং পরবর্তী সময় তাঁদের মধ্যে আরও কথা হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালন ছিলেন সমবয়সী। ১৯৬২ সালে আফ্রো–আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন নামের একটি স্টাডি গ্রুপের সদস্য হিসেবে ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালনের মধ্যে ভালো জানাশোনার সুযোগ তৈরি হয়। এই গ্রুপই ব্ল্যাক স্টাডিকে অধ্যয়ন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে ভূমিকা রাখে। এভাবেই ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালনের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ১৯৬৩ সালে তাঁরা বিয়ে করেন।

কমলা জানিয়েছেন, বার্কলেতে নাগরিক অধিকার আন্দোলনে অংশ নিতে গিয়ে তাঁর মা–বাবা পরস্পরের প্রেমে পড়েন।

বিজ্ঞাপন
default-image

ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালনের ঘরে জন্ম নেন কমলা ও মায়া।

তবে ডোনাল্ড হ্যারিস ও শ্যামলা গোপালনের সংসার বেশি দিন টেকেনি। ১৯৬৯ সালে দুজন আলাদা হন। বছর দুয়েক পরে আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ।

মা-বাবার বিচ্ছেদের পর কমলা ও তাঁর বোন মায়া মায়ের কাছেই বড় হন।

২০০৯ সালে শ্যামলা গোপালনের মৃত্যু হয়। ৮২ বছর বয়সী ডোনাল্ড হ্যারিস বর্তমানে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির ইমেরিটাস অধ্যাপক।

মন্তব্য পড়ুন 0