default-image

ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনায় ছয়জন পুলিশ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া আরও ২৯ জন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এ নিয়ে তদন্ত চলছে। একই ঘটনায় শ্বেতাঙ্গ উগ্রবাদী সংগঠন ‘ওথ কিপার্স’–এর নয়জন সদস্যের নামে অপরাধ আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে।

নির্বাচনে পরাজিত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর উগ্রবাদী সমর্থকদের ৬ জানুয়ারি ওয়াশিংটনে জড়ো করেন। নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশন চলাকালে উগ্রবাদীরা ক্যাপিটল হিলে হামলা চালান। তাঁরা ভাইস প্রেসিডেন্ট, স্পিকারসহ অন্য আইনপ্রণেতাদের প্রাণনাশের হুমকি দেন। অফিস তছনছ করেন এবং এলোপাতাড়ি হামলা চালান। এ ঘটনায় একজন পুলিশ সদস্যসহ পাঁচজন নিহত হন।

বিজ্ঞাপন

ওয়াশিংটন ডিসিতে মেট্রো পুলিশ ও ক্যাপিটল পুলিশের উপস্থিতিতে এমন সহিংস ঘটনা নিয়ে শুরু থেকেই নানা প্রশ্ন দেখা দেয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাংশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কংগ্রেস অভিশংসন প্রস্তাব গ্রহণ করে। সেই সঙ্গে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহভাজনদের খুঁজে বের করতে তল্লাশি ও তদন্ত শুরু হয়। পর্যাপ্ত সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট না পড়ায় ডোনাল্ড ট্রাম্প অভিশংসন থেকে অব্যাহতি পেয়ে যান। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (এফবিআই) বলছে, ৬ জানুয়ারির হামলায় জড়িত প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার ক্যাপিটল পুলিশের প্রধান জানিয়েছেন, তদন্তের পর ছয়জন পুলিশ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এখনো তদন্ত চলছে।
প্রাথমিক তদন্তে পেশাগত নৈতিকতা ও দায়িত্বের সঙ্গে আপস করার আলামত পাওয়ায় ছয়জনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া আরও ২৯ জন ক্যাপিটল পুলিশ কর্মকর্তা তদন্তের আওতায় রয়েছেন। তদন্তে হামলাকারীদের সঙ্গে যোগাযোগের প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ফেডারেল প্রসিকিউশন বলছেন, চরম রক্ষণশীল শ্বেতাঙ্গ সংগঠন ওথ কিপার্সের নয়জন সদস্যের বিরুদ্ধে অপরাধ আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে। ওহাইও অঙ্গরাজ্যে এই সংগঠনের শক্ত ঘাঁটি রয়েছে। ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনায় তাঁদের সাংগঠনিক যোগাযোগের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

৬ জানুয়ারির ওই হামলার আগে ওয়াশিংটন ডিসির কাছেই ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের আর্লিংটন এলাকার হোটেলগুলোয় শ্বেতাঙ্গ উগ্রবাদী দলের বেশির ভাগ সদস্য অবস্থান নিয়েছিল। ওথ কিপার্সের নারী সদস্য জ্যাসিকা ওয়াটকিনস, কেলি ম্যাগসসহ অন্যরা ট্রাম্পের উসকানিমূলক বক্তব্য ছড়িয়ে লোকজনকে সশস্ত্র হামলার জন্য উদ্বুদ্ধ করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ফোন কলের সূত্র ধরে তাঁদের চিহ্নিত করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে প্রমাণও উপস্থাপন করা হয়েছে। হামলার জন্য রসদ ফুরিয়ে গেলে গোলাবারুদ মজুত নিয়ে ওথ কিপার্সের সদস্যদের মধ্যে আলোচনার অডিও রেকর্ড আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে।

ওথ কিপার্স ছাড়াও প্রাউড বয়েজ নামের শ্বেতাঙ্গ উগ্রবাদী সংগঠনের বেশ কয়েকজনকে ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনায় এ পর্যন্ত আইনের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন