তবে কেভন বলেন, সান ফ্রান্সিসকোভিত্তিক প্রযুক্তি কোম্পানিটি তাঁকে বরখাস্ত করেছে।

টুইটার পোস্টে কেভন বলেন, ‘সত্য হলো, যা বলা হয়েছে, তা ঠিক নয়। আমি কখনো টুইটার ছেড়ে যাওয়ার কথা ভাবিনি। এটি আমার সিদ্ধান্ত নয়।’

কেভন পিতৃত্বকালীন ছুটিতে ছিলেন। এ অবস্থায় তিনি চাকরি হারানোর কথা জানেন।কেভন বলেন, টুইটারপ্রধান পরাগ আগারওয়াল তাঁকে চাকরি ছেড়ে দিতে বলেছেন। জানিয়েছেন, তিনি টুইটারকে ভিন্নভাবে চালাতে চান।

টুইটার কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে যে গুরুত্বপূর্ণ পদ বাদে সব ধরনের নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। চলতি সপ্তাহ থেকেই তা কার্যকর হবে। টুইটার কেনার জন্য গত মাসে চুক্তিতে উপনীত হন বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান নির্বাহী মাস্ক।

চলতি বছরের শেষ নাগাদ আনুষ্ঠানিক চুক্তি হওয়ার কথা রয়েছে। চুক্তি শেষে কোম্পানির মালিকানা হস্তান্তর হবে।

চুক্তি হলে ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারের বিনিময়ে টুইটারের মালিক হবেন বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি।

চুক্তিতে উপনীত হওয়ার পরই খবর বের হয়, মাস্ক টুইটার থেকে কর্মী ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা করছেন। প্রতিষ্ঠানটির নিচের দিকের কর্মীদের দক্ষতা বাড়াতে তিনি এই পরিকল্পনা করছেন বলে জানা গেছে।

মাস্কের পরিকল্পনা অনুযায়ী, ব্যয় কমাতে টুইটারে শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বেতনও বন্ধ হতে পারে।

একই সঙ্গে নতুন উপায়ে টুইটারের আয় বাড়ানোর কথাও ভাবছেন মাস্ক।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন