default-image

নিউইয়র্ক থেকে নির্বাচিত তারকা ডেমোক্র্যাট কংগ্রেস সদস্য আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও-করটেজকে হত্যার হুমকির অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির নাম গ্রেটার মিলার। তিনি শ্বেতাঙ্গ ও রক্ষণশীল। তিনি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থক।

মার্কিন বিচার বিভাগ জানিয়েছে, ওকাসিওকে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন গ্রেটার মিলার। তাঁকে গত বুধবার গ্রেপ্তার করা হয়।

মার্কিন বিচার বিভাগ জানিয়েছে, মিলারের বিরুদ্ধে ক্যাপিটল হিলে অবৈধ প্রবেশ ও আইনপ্রণেতা ওকাসিওকে হত্যার হুমকির অভিযোগ আনা হয়েছে।

আদালতে দায়ের করা অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, মিলার টুইট করে ওকাসিওকে হত্যার হুমকি দেন।

৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে পুলিশের গুলিতে ট্রাম্পের এক সমর্থক নিহত হন। পুলিশের যে সদস্য গুলি করেছেন, তাঁর মৃত্যু প্রাপ্য বলে মিলার তাঁর টুইটে উল্লেখ করেছেন।

মিলার তাঁর ফেসবুক পোস্টে বলেছিলেন, তিনি নিজের একটু ক্ষতি করতে চেয়েছিলেন।

মিলারের এমন কথার জেরে ওকাসিও শনিবার এক টুইটে বলেন, ‘হ্যাঁ, তুমি তা–ই করেছ!’

বিজ্ঞাপন
default-image

আদালতের নথি থেকে জানা যায়, মিলার ৬ জানুয়ারির আগে-পরে ক্রমাগত সামাজিক মাধ্যমে উসকানিমূলক পোস্ট দিয়ে আসছিলেন। গৃহযুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে, পরেরবার তাঁরা বন্দুক নিয়ে হাজির হবেন—এমন বক্তব্যও তিনি পোস্ট দিয়েছিলেন।

তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আহ্বানে ৬ জানুয়ারি তাঁর উগ্র সমর্থকেরা ক্যাপিটলে জড়ো হয়েছিলেন। একপর্যায়ে তাঁরা কংগ্রেস ভবনে হামলা চালান। সহিংস এই হামলার ঘটনায় পুলিশসহ পাঁচজন নিহত হন।

এমন চরমপন্থী লোকদের এখন আমেরিকার জন্য হুমকি হিসেবে দেখা হচ্ছে। এদিকে এসব লোকের প্রতি ট্রাম্প এখন আর কোনো সহানুভূতি দেখাচ্ছেন না। সিনেটে নিজের অভিশংসন বিচার সামাল দেওয়াই এখন তাঁর জন্য জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকদের অনেকে এখন অনুশোচনা ভুগছেন বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যমে খবর বের হয়েছে।

ক্যাপিটলে হামলা নিয়ে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ব্যাপকভাবে তৎপর রয়েছে। নানামুখী তদন্তের মাধ্যমে তারা এই হামলার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন