বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইউক্রেন ইস্যুতে উত্তেজনা নিরসনে পুতিনের সঙ্গে ফোনালাপের জন্য বাইডেনকে অনুরোধ জানায় রাশিয়া। এই অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল রাতের দুই নেতার মধ্যে প্রায় এক ঘণ্টার ফোনালাপ হয়। এ নিয়ে চলতি মাসে দ্বিতীয়বারের মতো পরস্পরের সঙ্গে কথা বলেন পুতিন ও বাইডেন।

গতকালের ফোনালাপে বাইডেনকে সতর্ক করে পুতিন বলেন, ইউক্রেন ইস্যুতে রাশিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দিলে তা হবে বড় ভুল।

এই ফোনালাপ সম্পর্কে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেন স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন যে রাশিয়া যদি ইউক্রেনে আর আগ্রাসন চালায়, তবে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা নিশ্চিতভাবেই জবাব দেবে।

ফোনালাপে দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি হুমকি দিলেও আলোচনায় পুতিন সন্তুষ্ট বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রনীতি–বিষয়ক উপদেষ্টা ইয়ুরি উশাকভ। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এই ফোনালাপের মধ্য দিয়ে পরবর্তী আলোচনার জন্য একটা ভালো ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে।
ইউক্রেন সমস্যা নিয়ে জেনেভায় বৈঠকে বসতে রাজি হয়েছে মস্কো ও ওয়াশিংটন। জেনেভায় আগামী ১০ জানুয়ারি বাইডেন ও পুতিন সরাসরি সাক্ষাৎ করবেন।

হোয়াইট হাউস বলছে, একটি কূটনৈতিক সমাধানে পৌঁছানোর জন্য পুতিনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাইডেন।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা বলেন, সীমান্তে এক লাখের বেশি রুশ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। ইউক্রেনে রাশিয়া শিগগির আগ্রাসন চালাতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশটির কর্মকর্তারা। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমারা উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে। ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানো হলে রাশিয়ার ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

অবশ্য রাশিয়ার দাবি, ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর কোনো পরিকল্পনা মস্কোর নেই।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন