জরিপে দেখা গেছে, ৬৪ শতাংশ ডেমোক্র্যাট সমর্থক বলেছেন, আগামী নির্বাচনে দলের উচিত অন্য কোনো প্রার্থীকে মনোনীত করা। এর মধ্যে অবশ্য ৩৩ শতাংশ মনে করেন, প্রেসিডেন্টের বয়স এ জন্য গুরুত্বপূর্ণ কারণ। এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রবীণ প্রেসিডেন্ট বাইডেন (৭৯)। পরবর্তী নির্বাচনে জিতলে ২০২৫ সালে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের সময় তাঁর বয়স দাঁড়াবে ৮২। বাইডেনকে পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে মনোনয়ন না দেওয়ার ক্ষেত্রে ৩২ শতাংশের মত হচ্ছে, তাঁর কাজের দক্ষতা আশানুরূপ নয়। মাত্র ২৬ শতাংশ ডেমোক্র্যাট সমর্থক বাইডেনকে পরবর্তী প্রার্থী চান বলে মত দিয়েছেন। জরিপে ৮৪৯ জন ভোটার অংশ নেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইও অঙ্গরাজ্যের দ্য অ্যাক্রন বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ডেভিড কোহেন বলেছেন, জরিপে বাইডেনের পক্ষে যে সংখ্যাগুলো উঠে এসেছে, তা ‘রীতিমতো ভয়ংকর’।

কোহেন কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল–জাজিরাকে বলেছেন, বাইডেনকে আরেক মেয়াদে নির্বাচনে প্রার্থী করার পাশাপাশি মার্কিন নাগরিকদের কাছে তাঁর বর্তমান অবস্থান নিয়েও ভাবতে হবে বর্তমান হোয়াইট হাউসকে। বর্তমান পরিস্থিতি তাঁর জন্য পুরোটাই প্রতিকূলে।

বাইডেন ও তাঁর ঘনিষ্ঠজনেরা বলে আসছেন, বাইডেন আগামী নির্বাচনে লড়বেন। প্রেসিডেন্টের নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকা সমস্যাগুলোও তিনি সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এর মধ্যে রয়েছে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি ও বৈশ্বিক সরবরাহব্যবস্থায় নানা সমস্যা।

মার্কিন জনগণ যে সমস্যাগুলোর মধ্যে রয়েছে, তার সব কটির জন্য বাইডেন দায়ী না হলেও জনগণ সবার আগে প্রেসিডেন্টকে দায়ী করছে। কোহেন আল–জাজিরাকে বলেছেন, অর্থনীতি ভালো হলে তার যেমন প্রশংসা জোটে, তেমনি অর্থনীতি খারাপ হলে তার দায়ও নিতে হয়।

কোহেন আরও বলেছেন, জরিপে বাইডেনের জন্য বেশি দুশ্চিন্তার বিষয় হচ্ছে, তরুণদের মধ্যে তাঁর জনপ্রিয়তা কমে যাওয়া। ১৮–২৯ বছর বয়সীদের মধ্যে বাইডেনের জনপ্রিয়তা কমে ১৯–এ নেমেছে। এই বয়সী ডেমোক্র্যাটদের মধ্যে ৯৪ শতাংশ আগামী নির্বাচনে অন্য কাউকে প্রেসিডেন্টে হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ার কথা বলেছে।

জরিপে বাইডেনের জন্য এত উদ্বেগের খবরের মধ্যেও কিছুটা সুখবরও আছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে ৪১ থেকে ৪৪ শতাংশ ভোটার তাঁকে সমর্থন দেওয়ার কথা বলেছে। কোহেন বলেছেন, জরিপে দেখা গেছে, ট্রাম্পও অত্যন্ত দুর্বল প্রার্থী। দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠী আবার ট্রাম্পের পথে যেতে চাইবে না।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন