default-image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে এবার চার বাংলাদেশি মার্কিন নাগরিক অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে দুজন তাঁদের বিজয় নিশ্চিত করেছেন। দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য জর্জিয়া স্টেট সিনেটর হিসেবে বিজয়ী (ডিস্ট্রিক্ট-৫) হয়েছেন শেখ রহমান। আর সর্বোচ্চ ভোটে নিউ হ্যাম্পশায়ার স্টেট রিপ্রেজেনটেটিভ হিসেবে চতুর্থ মেয়াদের জন্য বিজয়ী হয়েছেন আবুল বি খান।

এ ছাড়া পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের অডিটর জেনারেল পদে বিজয়ের পথে রয়েছেন নীনা আহমেদ। তাঁর জয়ের সম্ভাবনা প্রবল। এর আগে এই স্টেটের রাজধানী ফিলাডেলফিয়ার ডেপুটি মেয়র এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার এশিয়াবিষয়ক উপদেষ্টা ছিলেন তিনি। নীনা আহমেদ ডেমোক্রেটিক পার্টির হয়ে ভোটে লড়ছেন। বুধবার ভোররাতে পেনসিলভানিয়া থেকে পাওয়া সর্বশেষ সংবাদে জানা গেছে, স্টেট অডিটর জেনারেল পদে নীনা আহমেদ পেয়েছেন ২৭ লাখ ৪ হাজার ভোট। ৩১ লাখ ৫৭ হাজার ভোট পেয়েছেন তাঁর রিপাবলিকান প্রতিদ্বন্দ্বী টিমুথি ডিফোর।

তবে ফিলাডেলফিয়া অঞ্চলে পোস্টাল ব্যালট গণনা চলছে। ৫০ শতাংশ ফলাফল এটি। আগেই বলা হয়েছে, পোস্টালে এসেছে ২৫ লাখ ভোট। এর অধিকাংশই ডেমোক্র্যাটদের। সেগুলো যথাযথভাবে গণনায় এলে নীনার বিজয়ের সম্ভাবনা প্রবল বলে মনে করছেন তাঁর নির্বাচনী দলের কর্মকর্তারা।

এদিকে টেক্সাসের কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-৩১ থেকে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হিসেবে বাংলাদেশি মার্কিন ডোনা ইমাম জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েও হেরে গেছেন। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ১০০ শতাংশ এলাকার ভোট গণনায় রিপাবলিকান প্রার্থী জন কার্টার পেয়েছেন ২ লাখ ১০ হাজার ৭৬৮ ভোট। অপর দিকে ডোনা পেয়েছেন ১ লাখ ৭৪ হাজার ৩৯৪ ভোট। এলাকাটি রিপাবলিকানদের। তৃণমূলের সংগঠক হিসেবে এই প্রথম রিপাবলিকান প্রার্থীকে চ্যালেঞ্জ দিয়ে মাঠে নেমেছিলেন ডোনা।

বিজ্ঞাপন

পুনরায় বিজয়ী সিনেটর শেখ রহমান

দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য জর্জিয়া স্টেট সিনেটর হিসেবে বিজয়ী (ডিস্ট্রিক্ট-৫) হলেন বাংলাদেশি মার্কিন শেখ রহমান। ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী ছিলেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে রিপাবলিকানদের কোনো প্রার্থী না থাকলেও নির্বাচনের আনুষ্ঠানিকতার জন্য অপেক্ষা করতে হয় তাঁকে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর তাঁকে বিজয়ী ঘোষণা করে জর্জিয়া নির্বাচন বোর্ড। কিশোরগঞ্জের সন্তান শেখ রহমান সব প্রবাসীর প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা এবং মাতৃভূমি বাংলাদেশের মানুষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

শেখ রহমান বলেন, ‘সবার আশীর্বাদে বহুজাতিক একটি সমাজে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হওয়ার মধ্যে অন্য রকম আনন্দ রয়েছে, যা আমাকে সামনে এগোতে আরও সহায়তা করবে।’

চতুর্থ মেয়াদের জন্য জয়ী আবুল খান

সর্বোচ্চ ভোটে নিউ হ্যাম্পশায়ার স্টেট রিপ্রেজেনটেটিভ হিসেবে চতুর্থ মেয়াদের জন্য বিজয়ী হলেন বাংলাদেশি মার্কিন আবুল বি খান। মঙ্গলবার রাতে বোর্ড অব ইলেকশন এ সংবাদ দিয়েছে। শ্বেতাঙ্গ অধ্যুষিত সিব্রুক ও হ্যামটন হিলস নিয়ে গঠিত ‘রকিংহাম-২০’ নির্বাচনী এলাকায় কোনো বাংলাদেশি দূরের কথা, সাউথ এশিয়ানদেরও অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। তেমনি একটি এলাকায় রিপাবলিকান হিসেবে সবার সঙ্গে মধুর সম্পর্ক রচনার মধ্য দিয়ে ছয় প্রার্থীর নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন আবুল খান।

জয়ী হওয়ায় ভোটারদের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানিয়ে পিরোজপুরের সন্তান আবুল খান বলেন, ‘দলীয়ভাবে বিজয়ী হলেও আমি এলাকার প্রতিটি মানুষের কল্যাণে আগের মতোই নিয়োজিত থাকব। একই সঙ্গে সুযোগ পেলেই সক্রিয় থাকব প্রবাসী বাংলাদেশিদের এবং প্রিয় মাতৃভূমির কল্যাণে।’

মন্তব্য পড়ুন 0