২০২০ সালের আগের বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে শিশু-কিশোরদের মৃত্যুর অন্যতম কারণ ছিল গাড়ি দুর্ঘটনা। আর বন্দুকজনিত ঘটনা ছিল দ্বিতীয় কারণ। তবে গত বুধবার ‘নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল মেডিসিন’ সাময়িকীতে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালে গাড়ি দুর্ঘটনার কারণকে ছাপিয়ে শিশু-কিশোর মৃত্যুর অন্যতম কারণ হয়ে উঠেছে আগ্নেয়াস্ত্র। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ৩৩ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে। এ ধরনের ঘটনায় ১ থেকে ১৯ বছর বয়সী মার্কিনদের মৃত্যুহারও বেড়েছে।

একই সময়ের মধ্যে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করে আত্মহত্যা ১ দশমিক ১ শতাংশ বেড়েছে।

আত্মহত্যা, হত্যা, অনিচ্ছাকৃত ঘটনাসহ আগ্নেয়াস্ত্রজনিত বিভিন্ন ঘটনায় শিশু-কিশোরদের মৃত্যু ২৯ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়েছে। এদিকে গাড়ি দুর্ঘটনার কারণে মৃত্যুহার কমেছে। ২০২০ সালে ১৯ বছরের কম বয়সী প্রায় ৩ হাজার ৯০০ মার্কিন নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে।

২০১৯ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত অতিরিক্ত মাত্রায় মাদক গ্রহণ ও বিষপানে মৃত্যুর ঘটনা ৮৩ দশমিক ৬ শতাংশ বেড়েছে। শিশু-কিশোরদের মৃত্যুর তৃতীয় অন্যতম কারণ এটি।

এপ্রিলে প্রকাশিত আরেকটি গবেষণা প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০২০ সালে অতিমাত্রায় মাদক গ্রহণের কারণে ৯৫৪ শিশু-কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। ২০১৯ সালে এ সংখ্যা ছিল ৪৯২।

২০২০ সালে কোভিড-১৯ মহামারি শুরুর পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক সহিংসতা বেড়েছে। ওই গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, বন্দুক সহিংসতা কী কারণে বেড়েছে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে আগ্নেয়াস্ত্রজনিত মৃত্যুহার পরবর্তীকালে মহামারির আগের সময়ের পর্যায়ে পৌঁছাবে কি না, তা ধারণা করা যায়নি।

ফেব্রুয়ারিতে অ্যানালস অব ইন্টারনাল মেডিসিনে প্রকাশিত অন্য এক গবেষণা প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ৭৫ লাখ মার্কিন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি ২০২১ সালের জানুয়ারি ও এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে প্রথমবারের মতো বন্দুকের মালিক হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন