নিলামকারী প্রতিষ্ঠানটি এর আগেও নাৎসি স্মৃতিচিহ্ন বহন করা পণ্য বিক্রি করেছে। জার্মান গণমাধ্যমকে তারা বলেছে, ইতিহাস সংরক্ষণ করাই তাদের উদ্দেশ্য।

অ্যাডলফ হিটলার ১৯৩৩ থেকে ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত জার্মানির নাৎসি বাহিনীর নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। নাৎসি বাহিনীর হাতে এক কোটির বেশি মানুষ পদ্ধতিগতভাবে হত্যার শিকার হন। যাঁদের মধ্যে শুধু ইহুদি হওয়ার কারণে প্রায় ৬০ লাখ মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল।

নিলামে বিক্রি হওয়া ঘড়িটির ক্যাটালগে বলা হয়, এটি সম্ভবত ১৯৩৩ সালে হিটলারকে জন্মদিনের উপহার হিসেবে দেওয়া হয়েছিল। ওই বছরই তিনি জার্মানির চ্যান্সেলর নির্বাচিত হন।

নিলাম প্রতিষ্ঠানের এক মূল্যায়নে বলা হয়, ১৯৪৫ সালের মে মাসে প্রায় ৩০ জন ফরাসি সেনা বার্গোফে আক্রমণের পর ঘড়িটি একটি স্মারক হিসেবে নেওয়া হয়েছিল। ধারণা করা হয়, ঘড়িটি বেশ কয়েকবার বিক্রি করা হয়েছিল এবং এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকটি প্রজন্মের হাতবদল হয়েছে।

এ নিলামের নিন্দা জানিয়ে খোলা চিঠি দিয়েছেন ৩৪ জন ইহুদি নেতা। চিঠিতে এসব পণ্য বিক্রিকে ‘ঘৃণ্য’ বলে বর্ণনা করা হয়। তারা নাৎসি বাহিনীর স্মৃতি বহন করা পণ্যগুলো নিলাম থেকে প্রত্যাহারের আহ্বান জানান।

ইউরোপীয় ইহুদি অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান রাব্বি মেনাচেম মার্গোলিন বলেন, এ বেচাকেনা ‘নাৎসি বাহিনীর সমর্থকদের পক্ষে দাঁড়ায়। যারা নাৎসিদের আদর্শ মেনে চলে।’

তবে নিলামে হিটলারের ঘড়ি বিক্রির আগে জার্মান গণমাধ্যমকে আলেকজান্ডার হিস্টোরিক্যাল অকশনস বলেছিল যে তাদের উদ্দেশ্য ছিল ইতিহাস সংরক্ষণ করা এবং বেশির ভাগ বিক্রি হওয়া পণ্য ব্যক্তিগত সংগ্রহে রাখা হয় বা হলোকাস্ট জাদুঘরে দান করা হয়।

সংস্থাটির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মিন্ডি গ্রিনস্টেইন বলেন, ‘যেকোনো কিছুর ভালো কিংবা খারাপ ইতিহাস থাকতে পারে। তবে এটি সংরক্ষণ করা আবশ্যিক। ঐতিহাসিক জিনিসগুলো নষ্ট করে ফেলা মানে এমন কিছু ঘটেছে, তার প্রমাণ মুছে ফেলা।’

নিলাম প্রতিষ্ঠানের সরবরাহ করা নথিতে হিটলার এ ঘড়ি পরেছিলেন বলে নিশ্চিত করা হয়নি। কিন্তু একজন বিশেষজ্ঞের মূল্যায়নে বলা হয়, সবকিছু বিবেচনা করে এটি হিটলারের ঘড়ি হওয়ার ‘সম্ভাবনাই বেশি’।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন