অপরাধস্থলের প্রতীকী ছবি
ছবি: এএফপি

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা ক্রিস্টিনা পাসকুয়ালেট্টো (৬২) এবং তাঁর স্বামী জন পাসকুয়ালেট্টো বেশ কিছুদিন ধরে আলাদা থাকছিলেন। জন চাইছিলেন স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হোক। কিন্তু বিচ্ছেদে রাজি নন ক্রিস্টিনা। এই নিয়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়াঝাঁটি হয়। পরে স্বামীকে গুলি করে বসেন স্ত্রী। গত বুধবার অ্যারিজোনার প্রেসকোট এলাকার একটি বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। গত বৃহস্পতিবার প্রেসকোট এলাকার পুলিশ বিভাগ এসব তথ্য জানিয়েছে।

এক ফেসবুক পোস্টে প্রেসকোট পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, এই ঘটনায় ক্রিস্টিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা, জালিয়াতিসহ একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে।

ক্রিস্টিনা পাসকুয়ালেট্টোর স্বামী জন থাকেন প্রেসকোটে। ক্রিস্টিনাও আগে সেখানেই থাকতেন। বর্তমানে দুজনে আলাদা থাকেন। ক্রিস্টিনা এখন গিলবার্টের বাসিন্দা।

জিজ্ঞাসাবাদে ক্রিস্টিনা বলেছেন, বুধবার মধ্যরাতের কিছুটা আগে গাড়ি চালিয়ে প্রেসকোটের বাড়িতে পৌঁছান তিনি। সেখানে জন এখন একাই থাকেন। স্ত্রী পৌঁছানোর পর দুজনের মধ্যে বিচ্ছেদ প্রশ্নে ঝগড়াঝাঁটি হয়। ক্রিস্টিনা পাসকোয়ালেট্টো চাচ্ছিলেন না স্বামীর সঙ্গে তাঁর বিবাহবিচ্ছেদ হোক। কিন্তু তাঁর স্বামী বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত থেকে সরছিলেন না। স্বামী যখন বিছানায় শুয়ে ছিলেন, তখন একটি বন্দুক নিয়ে তাঁকে গুলি করেন ক্রিস্টিনা।

পুলিশের এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর ৮০ বছর বয়সী জন তাঁর স্ত্রী ক্রিস্টিনাকে চেপে ধরে মেঝেতে ফেলে দেন। তখন তাঁর হাত থেকে বন্দুকটি পড়ে যায়। এরপর পাসকোয়ালেট্টোকে হাত আর কনুই দিয়ে আঘাত করে দৌড়ে প্রতিবেশীর বাড়িতে পালিয়ে যান জন। তিনি জরুরি নম্বর ৯১১-এ ফোন করে সহায়তা চান।

ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর পুলিশ দেখতে পায়, জনের হাতের কবজিতে গুলি লেগেছে। তাঁকে ঘটনাস্থলেই তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে জনকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। এরপর তাঁকে আবার ফোয়েনিক্স এলাকার হাসপাতালে নেওয়া হয়।

পুলিশের ভাষ্য, জন তাদের বলেছেন তিনি ঘটনার আগে বাড়ির দরজার তালা পাল্টেছিলেন। তবে এর চাবি এবং অন্যান্য জিনিস এখন খুঁজে পাচ্ছেন না। জনের অভিযোগ, ক্রিস্টিনা পাসকোয়ালেট্টো সপ্তাহখানেক আগে তাঁর চেক চুরি করেছেন এবং ১০ হাজার ডলার মূল্যের একটি চেক জালিয়াতি করে নগদ অর্থ তুলে নিয়েছিলেন।