গত বৃহস্পতিবার করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় বাইডেনের। হোয়াইট হাউসে এর পর থেকে আইসোলেশনে আছেন তিনি। এ সপ্তাহের শেষে কাজে ফিরবেন বলে আশা করেন বাইডেন। যদিও অনলাইনে কাজকর্ম সারছেন তিনি। তবে অন্য সময়ের তুলনায় কাজের চাপ কিছুটা কম নিচ্ছেন।

এর আগে হোয়াইট হাউসের আবাসিক চিকিৎসক বলেন, ৭৯ বছর বয়সী বাইডেনের শারীরিক অবস্থার অনেকটা উন্নতি হয়েছে। তবে এখনো তাঁর চিকিৎসা চলছে।

বাইডেনের চিকিৎসক কেভিন ও কনোর হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারিকে একটি স্মারকলিপিতে বলেন, তাঁর করোনার উপসর্গগুলো এখন নেই বললেই চলে। তাঁর নাকে কিছু প্রদাহ আছে এবং কণ্ঠস্বর ভাঙা আছে। চিকিৎসক আরও বলেন, বাইডেনের ফুসফুসের অবস্থা ভালো।

নাড়ি ঠিকমতো চলছে। রক্তচাপ ও শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক। স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, প্রেসিডেন্টকে অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। তাঁর কোনো শ্বাসকষ্ট নেই।

বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টদের মধ্যে সবচেয়ে বয়স্ক। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট কার্যালয় বলছে, তাঁর শারীরিক অবস্থা ভালো। তাঁকে করোনাভাইরাসের সব কটি ডোজের টিকা দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন