টুইটার ইস্যুতে বুধবার আরও দুটি টুইট করেছেন ইলন মাস্ক। টুইটারের প্রশংসা করে একটি বার্তায় তিনি লিখেছেন, নাগরিক সাংবাদিকতার ক্ষমতায়নে টুইটার যা করেছে, তা একটি ভালো দিক। কোনো ধরনের পক্ষপাত ছাড়া সাধারণ মানুষ এতে খবর প্রকাশ করতে পারছেন। আরেক টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, টুইটারের কিছু অসাধারণ মানুষের সঙ্গে আজ সাক্ষাৎ হলো।

ওয়াশিংটন পোস্ট-এর খবরে বলা হয়েছে, টুইটার কেনার পথে হাঁটছেন ইলন মাস্ক। এবার সত্যি প্রতিষ্ঠানটি কিনছেন তিনি। বুধবার টুইটারের কার্যালয়ে গিয়ে তিনি এটিই ইঙ্গিত দিলেন, চলতি সপ্তাহেই এই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হতে যাচ্ছেন। এ জন্য তাঁকে গুনতে হবে ৪ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার। এ বিষয়ে ইলন মাস্কের কাছের কয়েকজন নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, এই অর্থায়ন সংগ্রহের কাজেও এগিয়েছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে ক্যালিফোর্নিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আদম বাদাওই বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘আমার ধারণা, শুক্রবার আমরা হয়তো ঘোষণা শুনতে পাব, টুইটার কিনেছেন ইলন মাস্ক।’

টুইটার কিনতে গত জানুয়ারি থেকে তোড়জোড় শুরু করেন ইলন মাস্ক। এরপর মার্চের মাঝামাঝি তিনি প্রতিষ্ঠানটির প্রায় ১০ শতাংশ শেয়ার কিনে ফেলেন। এরপর টুইটার কেনার জন্য তিনি টেসলার শেয়ার বিক্রি করেন। পরে এই সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে এলে আইনি জটিলতায় পড়েন তিনি। সেই ঝামেলা এখনো কাটেনি। তিনি এই প্রতিষ্ঠান না কিনলে তাঁকে জরিমানা গুনতে হবে। আর সেই জরিমানা এড়াতেই টুইটারের সঙ্গে চুক্তি সম্পন্ন করতে চাইছেন ইলন মাস্ক।