হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা আনুষ্ঠানিকভাবে বলেছেন উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচিতে প্রভাব বিস্তারের জন্য চীনের ওপর চাপ প্রয়োগ করবেন বাইডেন। উত্তর কোরিয়ার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পরিপ্রেক্ষিতে এই পদক্ষেপ নেবেন বাইডেন। দেশটি শিগগিরই সপ্তম পরমাণু পরীক্ষা চালাতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে।

নেভাদায় ডেমোক্র্যাট নেতা ক্যাথেরিন কর্টেজ মাস্তো জয়ী হওয়ার খবরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন বাইডেন। তিনি বলেন, ‘আমি জানি আমি আরও শক্তিশালী হয়ে আসছি।’

বাইডেন আজ দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইউন সুক ইওল ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন। উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির হুমকি নিয়ে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হবে।

উত্তর কোরিয়ার ঘনিষ্ঠ মিত্র হচ্ছে পিয়ংইয়ং। এ কারণেই চীনের সঙ্গে আলোচনায় উত্তর কোরিয়াকে সতর্ক করার ওপর জোর দেবেন বাইডেন।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান সাংবাদিকদের বলেন, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি শুধু যুক্তরাষ্ট্র  নয়, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার ওপরও প্রভাব ফেলবে।