এর অংশ হিসেবে আজ শেষ ধাপে দেড় কোটি ব্যারেল তেল বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দেবেন বাইডেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, এক ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এ ঘোষণা দেবেন। এর মধ্য দিয়ে বাইডেন পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিতে চাইছেন যে রাশিয়া কিংবা অন্য দেশের কর্মকাণ্ডের কারণে শীতকালে বিশ্ববাজারে অস্থিরতা দেখা দিলে প্রয়োজনে তেল সরবরাহের জন্য তাঁর প্রশাসন প্রস্তুত আছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে অভিযান শুরুর পর বড় তেল রপ্তানিকারক দেশ রাশিয়া ইউরোপীয় ও যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার মধ্যে পড়ে। এতে বিশ্ববাজারে তেলের দামে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। ক্রেমলিন হুমকি দিয়েছে, জ্বালানি সরবরাহব্যবস্থায় লাগাম টানাকে পশ্চিমাদের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করবে তারা।

পেট্রলের দাম গ্যালনপ্রতি গড়ে পাঁচ ডলারের বেশি হওয়ায় দেশের অভ্যন্তরে ক্ষোভের মধ্যে আছেন বাইডেন। মূল্যস্ফীতিকে কেন্দ্র করে নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের পরাজিত করার আশা করছে রিপাবলিকানরা।

আরেকজন মার্কিন কর্মকর্তা এএফপিকে বলেছেন, মার্কিন তেল ভান্ডার ভালো অবস্থায় আছে। ভান্ডারে ৪০ কোটি ব্যারেলের বেশি তেল মজুত আছে। তাঁর কথা অনুযায়ী, প্রয়োজনে আরও বেশি পরিমাণে বিক্রির মতো যথেষ্ট পরিমাণে তেলের মজুত তাদের কাছে আছে।