গতকাল অষ্টমবারের মতো শুনানি হয়। অন্যদিনের শুনানির মতো এদিনও হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের সাবেক সহযোগী ও নিরাপত্তা কর্মীদের ভিডিও জবানবন্দি উপস্থাপন করেছে তদন্ত প্যানেল।

ভিডিও জবানবন্দিতে সাক্ষীরা বলেন, সমর্থকদেরকে হামলায় উসকানি দিয়ে বক্তব্য দেওয়ার পর ১৮৭ মিনিট (তিন ঘণ্টার বেশি) ধরে নিষ্ক্রিয় ছিলেন ট্রাম্প। অর্থাৎ তাঁর উসকানিতে হামলা শুরুর পর তা ঠেকাতে ১৮৭ মিনিট কোনো পদক্ষেপ নেননি তিনি। এরপর এক ভিডিও বক্তব্যে সমর্থকদের বাড়ি ফিরে যেতে বলেন ট্রাম্প।

জবানবন্দি নেওয়ার সময় হোয়াইট হাউসের সাবেক উপদেষ্টা প্যাট সিপোলোনকে তদন্তকারী ব্যক্তিরা ঘটনার দিন ট্রাম্পের ভূমিকা সম্পর্কে একের পর এক প্রশ্ন করেন। তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়, ট্রাম্প তাঁর প্রতিরক্ষামন্ত্রী, অ্যাটর্নি জেনারেল কিংবা হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের প্রধানকে ফোন করেছিলেন কিনা। সিপোলোন প্রতি প্রশ্নের জবাবে না সূচক উত্তর দিয়েছেন।

প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্রেটিক সদস্য এলাইনে লুরিয়া বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর ডাইনিং টেবিলে বসেছিলেন এবং টেলিভিশনের পর্দায় হামলার দৃশ্য দেখছিলেন। তাঁর জ্যেষ্ঠ কর্মী, ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টা ও পরিবারের সদস্যরা তাঁকে (ট্রাম্প) এমন পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য অনুরোধ করছিলেন, যা যেকোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে আশা করা হয়।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেনের জয়ের সত্যায়নে ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশন বসে। সত্যায়ন প্রক্রিয়া ঠেকাতে ট্রাম্পের উসকানিতে তাঁর উগ্র সমর্থকেরা কংগ্রেস ভবনে (ক্যাপিটল হিল) সহিংস হামলা চালান। এতে পুলিশসহ কয়েকজন নিহত হন।

গতকালের শুনানিতে প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য অ্যাডাম কিনজিনগার বলেন, দাঙ্গাকারী ব্যক্তিদের থামানোর কোনো ইচ্ছা ট্রাম্পের ছিল না। তিনি বলেন, হামলাকারী ব্যক্তিরা ট্রাম্পের উদ্দেশ্যই পূরণ করছিল। স্বাভাবিকভাবে তিনি এতে হস্তক্ষেপ করেননি।

তদন্ত প্যানেলে যে দুজন রিপাবলিকান সদস্য আছেন, তাঁদেরই একজন কিনজিনগার।
আগামী সেপ্টেম্বরে ক্যাপিটল হিলের ঘটনায় প্রতিনিধি পরিষদে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আরেক দফা শুনানি হবে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন