বাইডেন তাঁর এই পরিকল্পনা সম্পর্কে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মনে করি, আমি আগামী ১০ দিনের মধ্যে প্রেসিডেন্ট সির সঙ্গে কথা বলব।’

চীনকে প্রধান কৌশলগত প্রতিপক্ষ বলে অভিহিত করে যুক্তরাষ্ট্র। একই সঙ্গে ওয়াশিংটন বলছে, যুক্তরাষ্ট্র-চীনের মধ্যকার জটিল সম্পর্ক স্থিতিশীল রাখতে দুই দেশের উচ্চপর্যায়ের সম্পৃক্ততা গুরুত্বপূর্ণ।

আগস্টে তাইওয়ান সফরের পরিকল্পনা করছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। এ নিয়ে কথা বলেন বাইডেন।

বাইডেন বলেন, তিনি মনে করেন, মার্কিন সামরিক বাহিনীর মতে, এখন এই সফরের পরিকল্পনাটি ভালো ধারণা নয়। তবে এই পরিকল্পনা এখন ঠিক কোন অবস্থায় আছে, তা তিনি জানেন না।

পেলোসি তাইওয়ান সফরে গেলে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেবে চীন। গত মঙ্গলবার চীনের সরকার এই হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

বেইজিং বলেছে, এই ধরনের সফর চীনের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে মারাত্মকভাবে ক্ষুণ্ন করবে।

পেলোসির কার্যালয় নিরাপত্তাসংক্রান্ত উদ্বেগের বিষয়টি উল্লেখ করে এই সফরের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন