ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টির কৌশলবিদ ৬৮ বছর বয়সী ব্যানন শুনানিতে হাজির হওয়া ছাড়া যেসব নথিপত্র তাঁর কাছে চাওয়া হয়েছিল সেগুলোও সরবরাহ করেননি।

তাঁর বিরুদ্ধে কংগ্রেসে অবমাননার দুটি অভিযোগ আনা হয়। তিন ঘণ্টা আলোচনা শেষে ১২ বিচারকের একটি জুরি বোর্ড ব্যাননকে দোষী সাব্যস্ত করেন।

২০১৭ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর হোয়াইট হাউসের প্রধান কৌশলবিদের দায়িত্ব পান স্টিভ ব্যানন। পরে ট্রাম্পের মতবিরোধের জেরে ওই বছরেই তিনি বরখাস্ত হন। প্রতিটি অভিযোগের জন্য সর্বনিম্ন এক মাস ও সর্বোচ্চ এক বছর জেল হতে পারে তাঁর। আগামী ২১ অক্টোবর এই মামলার রায় ঘোষণা করা হবে।
আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর এর প্রতিক্রিয়ায় ব্যানন বলেন, ‘আমরা আজ হয়তো এখানে একটা লড়াইয়ে হেরে গেলাম, কিন্তু আমরা এই যুদ্ধে হারছি না। আমি ট্রাম্প ও সংবিধানের পক্ষে আছি।’ পরে ফক্স নিউজকে তিনি বলেন, ‘আপিলের আরও দীর্ঘ প্রক্রিয়া এখনো বাকি। আমাকে জেলে যেতে হলে, তাই যাব।’

এদিকে ক্যাপিটল হিলে গঠিত কমিটির চেয়ার বেনি থমপসন ও ভাইস চেয়ার লিজ চেনি আদালতের এ রায়কে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ‘কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। স্টিভ ব্যাননকে দোষী সাব্যস্ত করার এ ঘটনা আইনের শাসনের বিজয় এবং কংগ্রেসের সিলেক্ট কমিটির কাজের প্রকাশ্য অনুমোদনের একটি গুরুত্বপূর্ণ উদাহরণ।’

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন