default-image

সাবেক নভোচারী অলড্রিন ১৯৬৯ সালে চাঁদে গিয়েছিলেন। অ্যাপোলো-১১ মিশনে যে তিনজন নভোচারী চাঁদে যান, তাঁদের মধ্যে শুধু অলড্রিন জীবিত আছেন। ছয় দিনের সে মহাকাশ যাত্রার বেশির ভাগ সময় জ্যাকেটটি পরেছিলেন অলড্রিন। শুধু চাঁদের পৃষ্ঠতলে নামার সময় সেটি পরিবর্তন করে প্রেশার স্যুট পরেছিলেন।

অ্যাপোলো-১১ মিশনে করে প্রথমবারের মতো তিনজন মার্কিন মহাকাশচারীর চাঁদে অবতরণের সেই দৃশ্য টেলিভিশনে দেখেছিলেন বিশ্বজুড়ে ৬৫ কোটি মানুষ। চাঁদের পৃষ্ঠে ২১ ঘণ্টা অতিবাহিত করার পর বাজ অলড্রিন ও নিল আর্মস্ট্রং অ্যাপোলো-১১-তে ফিরে আসেন এবং আবারও তাদের স্পেস জ্যাকেট পরিধান করেন। নিলামে বিক্রি হওয়া সেই স্পেস জ্যাকেটটির সঙ্গে বাজ অলড্রিন যে নোট দিয়েছেন সেখানে তিনি সেটিকে ‘অনেক বেশি আরামদায়ক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

বেটা নামে পরিচিতি আগুন প্রতিরোধী কাপড়ের তৈরি এই সাদা জ্যাকেট ১৯৬৯ সালের চন্দ্রজয়ের মহাকাশ মিশনে ব্যবহৃত প্রথম বিক্রি হওয়া কোনো পোশাক। সথবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিক্রির জন্য নিলামে তোলার প্রায় ১০ মিনিটের মধ্যেই মুঠোফোনের মাধ্যমে একজন অজ্ঞাত ব্যক্তি জ্যাকেটটি কিনে নেন। নভোচারী অলড্রিনের ব্যক্তিগত সংগ্রহে থাকা বেশ কিছু সামগ্রী মোট ৮২ লাখ ডলারে বিক্রি হয়েছে। তবে কবে সেই নিলাম অনুষ্ঠিত হয়েছে, তা জানানো হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন