সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইভিত্তিক খালিজ টাইমস-এর খবরে বলা হয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্ত এলাকা থেকে বেলুনে করে সাহায্য পাঠানো হচ্ছে। এর মধ্যে মাস্ক রয়েছে। রয়েছে ভিটামিন-সি বড়ি এবং জ্বর কমানোর বড়ি।

দক্ষিণ কোরিয়া থেকে বেলুনে করে সাহায্য পাঠানো নিয়ে একধরনের বিতর্ক রয়েছে। উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, সেখানে করোনার সংক্রমণ ছড়ানোর ক্ষেত্রে উড়ে আসা বেলুনের ভূমিকা রয়েছে।

কিন্তু এরপরও দক্ষিণ কোরিয়ায় অস্থানরত অধিকারকর্মী পার্ক সাং-হাক দেশটিতে সাহায্য পাঠাচ্ছেন। তিনি জানিয়েছেন, ২০ হাজার মাস্ক, কয়েক হাজার ভিটামিন সি বড়ি ও কয়েক হাজার জ্বর কমানোর বড়ি পাঠাচ্ছেন বেলুনে করে।

অধিকারকর্মী পার্ক মূলত উত্তর কোরিয়ার নাগরিক। দেশ ছেড়ে পালিয়ে এসে দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থান নিয়েছেন। নিজ দেশের নাগরিকদের সচেতন করতে মাঝেমধ্যে বেলুন উড়িয়ে দেন তিনি। এই বেলুনের মধ্যে থাকে গণতন্ত্র, মানবাধিকার নিয়ে লেখা বই, ডিভিডি, পেনড্রাইভ। উত্তর কোরিয়ার নাগরিকদের সচেতন করতে এসব সামগ্রীসহ এ পর্যন্ত কয়েক লাখ বেলুন তিনি সেখানে পাঠিয়েছেন। এসব বেলুন উড়িয়ে দেওয়ার পর সেগুলো সাধারণত তিন ঘণ্টা পর পিয়ংইয়ংয়ে পৌঁছায়। তিনি মনে করেন, দেশের মানুষকে সচেতন করা তাঁর দায়িত্ব। এ জন্য এসব পাঠান তিনি।

তবে নিজে দেশে করোনা ছড়ালে নতুন উদ্যোগ নিলেন পার্ক। তিনি বলেছেন, এখন মানুষকে সচেতন করার বদলে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বেশি জরুরি। এ জন্য গত বুধবার এসব চিকিৎসা সরঞ্জাম পাঠিয়েছেন তিনি। এর আগে গত মাসে দুই দফা এমন সাহায্য পাঠিয়েছেন তিনি।

এ ছাড়া বেলুনের মাধ্যমে করোনা ছড়ানোর অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন পার্ক। তিনি বলেন, ‘যিনি করোনা ছড়িয়েছেন, তিনি হলেন কিম জং-উন। কিন্তু তিনি এই দোষ আমাদের ওপর চাপানোর চেষ্টা করছেন।’

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন