মুক্তিযুদ্ধ, সমাজসেবা, শিক্ষা, শিল্প-বাণিজ্যসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ১১ জন গুণী ব্যক্তিকে অমর একুশে স্মারক সম্মাননা পদক এবং সাহিত্যে অবদানের জন্য পাঁচজনকে সাহিত্য পুরস্কার দিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। গতকাল শনিবার মুসলিম ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিক আয়োজনের মধ্য দিয়ে তাঁদের সম্মানিত করা হয়েছে।
সাহিত্যে অবদানের জন্য যাঁরা এ বছর পুরস্কার পেয়েছেন তাঁরা হলেন: মনিরুজ্জামান (প্রবন্ধ-গবেষণা), ময়ূখ চৌধুরী (কবিতা), সিদ্দিক আহমেদ (বিশ্বসাহিত্য), বিশ্বজিৎ চৌধুরী (কথাসাহিত্য), ইকবাল বাবুল (শিশুসাহিত্য)।
অমর একুশে পদক পেয়েছেন: আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু (মরণোত্তর, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা আন্দোলন), এল কে সিদ্দিকী (মরণোত্তর, সমাজসেবা), জাফরুল ইসলাম চৌধুরী (সমাজসেবা), মুহাম্মদ সিকান্দার খান (শিক্ষা), জানে আলম দোভাষ (মরণোত্তর, সমাজসেবা), শাহজাদা ফৌজুল আলী খান (সমাজসেবা), খলিলুর রহমান (শিল্প-বাণিজ্য), মোহাম্মদ কবির চৌধুরী (পেশাজীবী), আবদুল জব্বার সওদাগর (মরণোত্তর, ক্রীড়া সংগঠক), মোহাম্মদ ইউসুফ (সাংবাদিকতা) ও মলয় ঘোষ দস্তিদার (মরণোত্তর, সংস্কৃতি)।
একুশে স্মারক সম্মাননা পদক ও সাহিত্য পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মন্জুর আলম। প্রধান বক্তা ছিলেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুপম সেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রামের সীমা ছাড়িয়ে যাঁরা সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রেখেছেন, সিটি করপোরেশন তাঁদের সম্মানিত করেছে। চট্টগ্রাম অতি প্রাচীন একটি শহর। শিল্প, সাহিত্য, কবিতায় এ অঞ্চলের রয়েছে বিশাল অবদান। সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রয়োগ বাড়ানোর আবেদন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘বাংলা দুর্বল ভাষা নয়, এ দিয়ে আমরা বিশ্বকে জয় করতে পারি। বিশ্বের সব উন্নত দেশ ধনী হয়েছে মাতৃভাষা চর্চা করে।’
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র বলেন, সিটি করপোরেশন একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। কিন্তু এর পাশাপাশি দায়িত্ববোধ থেকে গুণীজনদের সম্মাননা প্রদান করছে প্রতিষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানে পদকপ্রাপ্ত গুণীজন ও তাঁদের উত্তরসূরিদের হাতে পদক, সনদ ও ফুল তুলে দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন