এর আগে গত ২৬ এপ্রিল সরই ইউনিয়নে প্রায় ৩০০ একর এলাকাজুড়ে করা জুমচাষের জমিতে আগুন দেওয়া হয়েছিল। আগুনে পাড়াবাসীর ফলদ-বনজ বাগান, ধানের খেত ও গাছ-বাঁশ পুড়ে যায়। তখন থেকে তিনটি পাড়ার ৩৬টি ম্রো ও ত্রিপুরা পরিবার খাদ্যসংকটে পড়ে। তখনো লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছিলেন আদিবাসীরা।

গত বুধবার রাতে এক কিশোরের নেতৃত্বে কয়েকজন রংধজন ত্রিপুরার ওপর হামলা চালায়। তাঁকে মারধর ও মাথায় আঘাত করা হয়। তিনি এখন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সংখ্যালঘু আদিবাসী নিপীড়নের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের কঠোর হাতে দমন করতে হবে। রংধজন ত্রিপুরার ওপর হামলাকারী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিও জানানো হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন