বাসস জানায়, গতকাল সভার বিষয়ে করা ব্রিফিংয়ে মুখ্য সচিব বলেছেন, ‘আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। ভবিষ্যতে যাতে আমাদের কোনো ধরনের সংকটে পড়তে না হয়, তার জন্য সতর্কতামূলকভাবেই এই ব্যবস্থা।’

গতকাল বুধবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ‘সরকারের ব্যয় সাশ্রয়ে কার্যকর কর্মপন্থা নিরূপণে’ অনুষ্ঠিত বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস। সভায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কবির বিন আনোয়ার, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কে এম আলী আজম, অর্থ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব ফাতেমা ইয়াসমিন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়াসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত সোমবার চলমান জ্বালানিসংকট পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আরেক বৈঠকে বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয়ে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) এবং জ্বালানি তেল আমদানি কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর পাশাপাশি ডিজেলচালিত সব বিদ্যুৎকেন্দ্রও আপাতত বন্ধ থাকবে। এর ফলে বিদ্যুৎ উৎপাদন কমবে। আর বিদ্যুতের ঘাটতি পূরণে সারা দেশে দিনে এক ঘণ্টা লোডশেডিং করবে বিদ্যুৎ বিভাগ, যা গত মঙ্গলবার থেকে সারা দেশে কার্যকর হয়েছে।

শপিং মল, দোকানপাট রাত আটটার মধ্যে বন্ধেরও সিদ্ধান্ত হয়েছে। গত ২০ জুন থেকে সারা দেশে সব ধরনের আলোকসজ্জা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া সরকারি অফিসের সময় দুই ঘণ্টা কমিয়ে আনার বিষয়েও প্রস্তাব আছে।

গতকাল নতুন করে নেওয়া সিদ্ধান্ত ও নির্দেশনাগুলোর মধ্যে আরও রয়েছে অনিবার্য না হলে শারীরিক উপস্থিতিতে সভা পরিহার করতে হবে। অধিকাংশ সভা অনলাইনে করতে হবে। অত্যাবশ্যক না হলে বিদেশ ভ্রমণ যথাসম্ভব পরিহার করতে হবে। খাদ্যদ্রব্যসহ নিত্যপণ্যের মূল্য সহনীয় রাখতে বাজার মনিটরিং, মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে মজুতদারির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণসহ অন্যান্য পদক্ষেপ জোরদার করতে হবে।

এ ছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী পরিবহনে ব্যক্তিগত যানবাহনের ব্যবহার যৌক্তিকীকরণের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেবে। আর অভ্যন্তরীণ সম্পদ সংগ্রহ বাড়াতে অর্থবছরের শুরু থেকেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে এবং লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে। এ ছাড়া প্রতিটি মন্ত্রণালয় নিজস্ব ক্রয় পরিকল্পনা পুনঃ পর্যালোচনা করে রাজস্ব ব্যয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

বাসস জানিয়েছে, গতকাল সভার বিষয়ে করা ব্রিফিংয়ে মুখ্য সচিব বলেছেন, ‘আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। ভবিষ্যতে যাতে আমাদের কোনো ধরনের সংকটে পড়তে না হয়, তার জন্য সতর্কতামূলকভাবেই এই ব্যবস্থা।’ তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান সবাইকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে মন্ত্রণালয়গুলোকে অনাবশ্যক ব্যয় পরিহারসহ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানান। সরকারের নীতি অনুসরণে বেসরকারি সংস্থাগুলোকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

কী বলেন সচিবরা

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী পরিবহনে ব্যক্তিগত যানবাহনের ব্যবহার যৌক্তিকীকরণের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়ার নির্দেশনার বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দীক প্রথম আলোকে বলেন, একটি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এখন এটি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির সঙ্গে বসে চিন্তাভাবনা করে দেখা হবে এটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব কতটুকু।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মনে করেন, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিষয়টি দ্রুত সময়ে বাস্তবায়ন করা বেশ কঠিন হবে। কারণ, বাসের বিষয় আছে, আবার রুটের বিষয়সহ এগুলো ব্যবস্থাপনা করার বিষয়ও আছে।

রাজস্ব বাড়াতে উদ্যোগ

রাজস্ব আদায়ের গতি বাড়াতে উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। ২৮ জুলাই শুল্ক, মূল্য সংযোজন কর (মূসক) ও কর বিভাগের সব কমিশনারকে নিয়ে বৈঠক করবেন এনবিআরের চেয়ারম্যানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ওই বৈঠকে চলতি অর্থবছরে কীভাবে রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি করা যায়, তা নিয়ে দিকনির্দেশনা দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। এর আগে এনবিআরের পক্ষ থেকে রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি করতে নির্দেশনাবলি তৈরি করা হবে বলে জানা গেছে। এদিকে বিদায়ী অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ে লক্ষ্য অর্জিত হয়নি। এনবিআরের সাময়িক হিসাবে, বিদায়ী অর্থবছরে প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা ঘাটতি হয়েছে।

উন্নয়ন বাজেটেও লাগাম

সরকারি ব্যয়ে কৃচ্ছ্র সাধনে উন্নয়ন বাজেটেও লাগাম টানা হয়েছে। চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় প্রকল্পগুলোকে এ, বি, সি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে বলা হয়েছে। এ ক্যাটাগরির ৬৪৬টি প্রকল্প অগ্রাধিকারভিত্তিতে বাস্তবায়ন হবে, বরাদ্দকৃত টাকা কাটা হবে না। বি ক্যাটাগরির ৬৩৬টি প্রকল্প থেকে সরকারি টাকার (জিওবি) ২৫ শতাংশ কাটা হবে। আর ৯০টি সি ক্যাটাগরির প্রকল্পে অর্থ ছাড় বন্ধ থাকবে।

এ ছাড়া চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে বিদেশ ভ্রমণ বাবদ বরাদ্দ রাখা হয়েছে ২ হাজার ১৬৭ কোটি টাকা। সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ কার্যত স্থগিত করায় এ খাত থেকেও টাকা সাশ্রয় হওয়ার আশা করছে সরকার।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের যত নির্দেশনা

এদিকে পানি ভবনের শীতাতপনিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস রাখা, ব্যক্তিগত কাজে অফিসের গাড়ি ব্যবহার থেকে বিরত থাকা, সকাল নয়টায় অফিসের কার্যক্রম শুরু করে বিকেল পাঁচটার মধ্যেই অফিস ত্যাগ করার নির্দেশনা দিয়েছেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কবির বিন আনোয়ার। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ অন্য সংস্থাগুলোর সব অফিসে ৫০ শতাংশ বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের লক্ষ্যে জরুরি এসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়। রাজধানীর পানি ভবনের সম্মেলনকক্ষে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত সভায় এমন একগুচ্ছ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন