১৫ নভেম্বর প্রথম আলো অনলাইনে ‘চলতি অর্থবছরে অনুষ্ঠানে জন্য ৭৫ কোটি টাকা চেয়েছে আইসিটি বিভাগ’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রতিমন্ত্রী এ সংবাদের সূত্র ধরে বলেন, ‘সংবাদের ভেতরে যে তথ্য–উপাত্ত, তাতে সাধারণ নাগরিকের মধ্যে ভুল–বোঝাবুঝির সৃষ্টি হতে পারে। সে কারণে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন।’

এ অর্থবছরের বাকি অনুষ্ঠানগুলো বাতিল করলেও জাতীয় দিবস হিসেবে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস সীমিত পরিসরে আয়োজিত হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

জুনাইদ আহ্‌মেদ বলেন, যে আয়োজনগুলো বাতিল করা হয়েছে, সেগুলো এখন না করলে খুব বেশি ক্ষতি হবে না। তা ছাড়া যে আয়োজনগুলো হয়েছে, তা থেকেও ব্যয় সংকোচন হয়েছে। প্রশিক্ষণ কার্যক্রমগুলো ৫০ শতাংশ কমানো হয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য কর্মসূচি ও প্রকল্পে কীভাবে ব্যয় সংকোচন করা যায়, তা বিবেচনা করা হচ্ছে। আইসিটি বিভাগের এ সিদ্ধান্তে সামগ্রিকভাবে সরকারের ব্যয় সংকোচন ও সাশ্রয় নীতিতে ভূমিকা রাখবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।