বিষয়টি নিশ্চিত করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্যবিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী। তাঁর ওয়ার্ডেও আইডি হ্যাকের ঘটনা ঘটেছে। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, পাঁচটি ওয়ার্ডে এই দুই দিন (মঙ্গল ও বুধবার) কোনো জন্মনিবন্ধন ইস্যু করা হবে না।

আপাতত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে। আর ইতিমধ্যে আইডি হ্যাক করে নেওয়া ৫৪৭ জন্মনিবন্ধন সনদ বাতিলের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এসব সনদ বাতিলের জন্য রেজিস্ট্রার জেনারেল কার্যালয়ে তালিকা পাঠিয়েছে সিটি করপোরেশন।

চট্টগ্রাম নগরের পাঁচটি ওয়ার্ডে আইডি হ্যাক করে জন্মনিবন্ধন সনদ জালিয়াতির ঘটনায় গতকাল সোমবার চারজনকে আটক করেছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। নগরের উত্তর পতেঙ্গা ও দক্ষিণ হালিশহর এলাকা থেকে তাঁদের আটক করা হয়।

এদিকে গতকাল সোমবার রাতে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. রাশেদুল হাসানের সঙ্গে সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সাক্ষাৎ করেছেন। এই সময় উপস্থিত ছিলেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুহম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, সচিব খালেদ মাহমুদসহ তিন কর্মকর্তা।

রেজিস্ট্রার জেনারেলের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় উপস্থিত থাকা সিটি করপোরেশনের এক কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, রেজিস্ট্রার জেনারেলকে সিটি করপোরেশনের পাঁচটি ওয়ার্ডের জন্মনিবন্ধন সনদ দেওয়ার আইডি হ্যাক হওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করা হয়। জালিয়াতি করা সনদগুলো বাতিলের বিষয়েও আলোচনা হয়। রেজিস্ট্রার জেনারেল জালিয়াতি করে নেওয়া সনদগুলোর নম্বর তাঁর কার্যালয়ে পাঠানোর নির্দেশনা দেন। এ ছাড়া জন্মনিবন্ধন সনদ দেওয়ার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত ইউজার আইডিগুলো আরও সুরক্ষিত করার বিষয়ে আলোচনা হয়।

সিটি করপোরেশনের সচিব খালেদ মাহমুদ প্রথম আলোকে বলেন, আইডি হ্যাকের মাধ্যমে নেওয়া জন্মনিবন্ধন সনদগুলো বাতিল করা হবে। ইতিমধ্যে সনদগুলোর তালিকা রেজিস্ট্রার জেনারেল কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। আর জন্মনিবন্ধন সনদ দেওয়ার জন্য ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও জন্মনিবন্ধন সহকারীর দুটি আইডি আছে। এগুলো সুরক্ষিত করতে সব ওয়ার্ডের আইডির পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলরের জন্য নির্দিষ্ট আইডি থাকলেও অনেক সময় তা তাঁদের ব্যক্তিগত সহকারী ও জন্মনিবন্ধন সহকারীরা ব্যবহার করে থাকেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ওয়ার্ড কাউন্সিলরের আইডির পাসওয়ার্ড তাঁদের ব্যক্তিগত সহকারী ও জন্মনিবন্ধন সহকারীর কাছে থাকে। সিটি করপোরেশনের এক কর্মকর্তা মনে করেন এই কারণে আইডি হ্যাকের ঝুঁকি তৈরি হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, পাঁচটি ওয়ার্ডে জন্মনিবন্ধন সনদ নিয়ে জালিয়াতির ঘটনার পর সব ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেটি হচ্ছে তাঁরা যেন তাঁদের ব্যক্তিগত আইডির পাসওয়ার্ড ব্যক্তিগত সহকারী বা জন্মনিবন্ধন সহকারীকে না দেন।