যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, মামলার প্রধান আসামি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৫০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা মাসুম মোল্লাসহ এজাহারভুক্ত অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। মামলায় এজাহারভুক্ত মোট আসামির সংখ্যা ২২ জন।

যাত্রাবাড়ী কাঁচাবাজার এলাকায় সিটি টোলের নামে চাঁদা তোলাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের দ্বন্দ্বে গত মঙ্গলবার ইমরান খুন হন। মামলার এজাহারেও চাঁদা তোলার দ্বন্দ্বের জেরে খুনের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। তবে ইমরান সিটি টোলের নামে নয়, চাঁদা তুলতেন ঢাকা জেলা ট্রাক ট্যাংকলরি কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের নামে।

মামলায় ইমরানের স্ত্রী পপি আক্তার উল্লেখ করেন, ইমরান পেশায় একজন পিকআপ শ্রমিক। পাশাপাশি তিনি পিকআপ, ট্রাকের কুলি মজুরির টোল আদায় করেন। টোল আদায়কে কেন্দ্র করে তাঁর স্বামী খুন হয়েছেন। মামলার দুই নম্বর আসামি উজ্জ্বল মোল্লা, তাঁর সহযোগী মোহাম্মদ আলী ও মো. আরিফ চাপাতি, ছুরি ও রামদা দিয়ে ইমরানকে কুপিয়ে হত্যা করেন। ইমরানকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছেন ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাসুম মোল্লা।