ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপকমিশনার আবদুল আহাদ বলেন, বাসটিকে গতকালই ঘটনাস্থল থেকে জব্দ করা হয়। বাসের চালক ও তাঁর সহযোগী গতকাল পালিয়ে গিয়েছিলেন। আজ তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। যাচাই-বাছাই করে দেখা গেছে, চালকের লাইসেন্স ছিল। বাসটির ফিটনেসও ঠিক ছিল।

নাদিয়া নিহত হওয়ার ঘটনায় তাঁর বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন গতকাল সড়ক পরিবহন আইনে মামলা করেন। এই মামলায় লিটন ও খায়েরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

নাদিয়া নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায়। তিন বোনের মধ্যে সবার বড় নাদিয়া। তাঁর বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন একটি পোশাক কারখানায় সহকারী মহাব্যবস্থাপক পদে চাকরি করেন।

নাদিয়ার বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন গতকাল প্রথম আলোকে বলেছিলেন, তাঁর মেয়ের স্বপ্ন ছিল বড় ফার্মাসিস্ট হবে। কিন্তু সব শেষ হয়ে গেল।